সিবিআই তদন্তের নির্দেশ আদালতের, দলের চাপে পদত্যাগ মহারাষ্ট্রের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর

25
anil desmukh

মহানগর ডেস্ক: :  মুম্বইয়ের প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার পরমবীর সিংয়ের অনিল দেশমুখের  বিরুদ্ধে অভিযোগের সিবিআই তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে বোম্বে হাইকোর্ট। এই নির্দেশের পরেই মহারাষ্ট্রের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অনিল দেশমুখ পদত্যাগ করলেন। পদত্যাগ পত্রে অনিল দেশমুখ লিখেছেন, ‘আদালতের নির্দেশের পর মন্ত্রীর পদে বসার কোনও নৈতিক অধিকার নেই। সেই কারণেই আমি মন্ত্রিত্ব থেকে সরে আসছি।’ একটি সাংবাদিক সম্মেলনে এনসিপির মন্ত্রী দিলীপ ওয়ালসে পাতিল জানিয়েছেন।

এনসিপির অন্য এক মন্ত্রী নবাব মালিক জানিয়েছেন, ‘প্রথমে মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরের সঙ্গে অনীল দেশমুখ দেখা করেন। তারপর পদত্যাগ করেন। বোম্বে হাইকোর্টের নির্দেশের পর এনসিপির তরফেই তাঁকে পদত্যাগের জন্য চাপ দেওয়া হয়। এনসিপির তরফে মুখ্যমন্ত্রীর কাছে অনিল দেশমুখের পদত্যাগপত্র গ্রহণ করার জন্য আবেদন করা হয়। যদিও অভিযোগের কোনও সত্যতা নেই।’

বোম্বে হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি দীপঙ্কর দত্ত ও বিচারপতি জিএস কুলকার্নির একটি বেঞ্চ এই নির্দেশ দিয়েছে। বোম্বে হাইকোর্টের তরফে একটি বিবৃতি দেওয়া হয়েছে, অনিল দেশমুখের বিরুদ্ধে পুলিশকে নিরপেক্ষ তদন্ত না করতে দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে। পাশাপাশি পুলিশের বদলির সময়ও দুর্নীতির অভিযোগ রয়েছে। বোম্বে হাইকোর্টের তরফে জানানো হয়েছে, এই মামলার স্বাধীন তদন্তের প্রয়োজন।

বোম্বে হাইকোর্টের তরফে জানানো হয়েছে, সিবিআইয়ের পরিচালককে প্রাথমিক তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সিবিআইকে প্রাথমিক তদন্ত ১৫ দিনের মধ্যে শেষ করতে হবে। প্রসঙ্গত, একটি চিঠিতে মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে ও এনসিপি প্রধান শরদ পাওয়ারের কাছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অনিল দেশমুখের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন। তিনি অভিযোগ করেন, মুম্বই পুলিশ আধিকারিক শচীন ভাজেকে দিয়ে মাসে ১০০ কোটির তোলা তুলতেন অনীল দেশমুখ। শুধু মুম্বইয়ের বার ও রেস্তোরাঁ থেকে ৪০-৫০ কোটিতে টাকা তোলা তুলত।