Maharastra Crisis : চরমে নাটক, ঠাকরে-শিন্ডের লড়াইয়ে জিতবে কে, শুরু প্রহর গোনা

67
ঠাকরে-শিন্ডের লড়াইয়ে শেষ হাস হাসবে কে ?

মহানগর ডেস্ক: হয় এসপার, নয় ওসপার। বিরোধী শিবিরের চাল বনাম ঠাকরে শিবিরের (Uddhav Thakre camp) পাল্টা চালে এই মুহূর্তে টানটান,রুদ্ধশ্বাস নাটক চরমে উঠেছে মহারাষ্ট্রের রাজ্য রাজনীতিতে। বৃহস্পতিবার উদ্ধব ঠাকরে শিবিরের ঘুরে দাঁড়ানোর পরেই একনাথ শিন্ডের বিস্ফোরক পদক্ষেপে কুর্সি দখলের লড়াইয়ে তৈরি হয়েছে নাটক। গতকাল রাজ্যপাল ও ডেপুটি স্পিকারের (Governor and Deputy Speaker) কাছে ৩৭জন শিবসেনা বিধায়কের চিঠির পরেই শুরু হয় টানটান অধ্যায়ের পালা। উদ্ধব ঠাকরেকে পুরোপুরি বাদ দিয়ে পরিষদীয় দলনেতা নাম জানিয়ে রাজ্যপাল,ডেপুটি স্পিকারের কাছে চিঠি জমা দেওয়ার পরই উদ্ধব ঠাকরে শিবির ডেপুটি স্পিকারের কাছে বারোজন বিদ্রোহী বিধায়কের বিধায়ক পদ বাতিলের দাবি জানিয়ে চিঠি দিয়েছে। তারপরই জমে উঠেছে নাটক।

যদিও একনাথ শিন্ডে জানিয়েছেন, ওই আবেদন বেআইনি। পাল্টা প্রশ্ন তুলেছেন একনাথ, আপনারা কারা ( পড়ুন ঠাকরে শিবির) যে ভয় দেখানোর চেষ্টা করছেন। আপনাদের আইন সম্পর্কে কতটা জ্ঞান আমরা জানি। সংবিধানের দশনম্বর ধারায় রয়েছে বিধানসভায় হুইপ কার্যকরী, সেটা দলীয় বৈঠকে কোনওভাবেই কার্যকর নয়। এ ব্যাপারে অসংখ্য রায় রয়েছে সুপ্রিম কোর্টের। শিবসেনা হুমকি দিয়েছে যাঁরা দলের বৈঠকে আসবেন না, তাদের বিধায়ক পদ আর থাকবে না। শিন্ডের সঙ্গে রয়েছে সাইত্রিশ জন বিধায়ক। তবে দলনিরোধী আইন ভঙ্গ না করে দল ভেঙে দিতে দরকার ওই সাইত্রিশজন বিধায়কের সমর্থন। তাঁর সঙ্গে মোট ৪২জন বিধায়ক রয়েছেন। আরও দুজন বিধায়ক ও একজন বিধান পরিষদের সদস্য গুয়াহাটিতে গতকাল সন্ধেয় তাঁর সঙ্গে যোগ দিয়েছেন। সবমিলিয়ে বড় রকমের টানটান লড়াইয়ের অপেক্ষায় মহারাষ্ট্র।

যে লড়াইয়ে বিজেপি আগেই হাত ধুয়ে ফেলেছে যে তারা এই ভাঙনের পেছনে কোনও কলকাঠি নাড়ছে না। যদিও ভিডিওয় দেখা গিয়েছে হোটেলে অসমের এক বিজেপি বিধায়ক একনাথ শিন্ডের সমর্থনকারী বিধায়কদের সঙ্গে রয়েছেন। সকালেই হোটেল ঘুরে গিয়েছেন অসমের মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা। ফলে পদ্মশিবিরের দাবি যে ঠিক নয়,সেটা প্রমাণ-সহ সবার সামনে জলজ্যান্ত হয়ে অন্য এক বার্তা দিচ্ছে। এদিকে ঠাকরে শিবিরকে স্বস্তি দিয়ে কংগ্রেস ও এনসিপি জানিয়েছে তারা ঠাকরের সঙ্গেই আছে। শরদ পাওয়ারও বলেছেন ঠাকরে সরকার টিকে যাবে। অতীতে বহু সরকার, একাধিক জোট টিকিয়ে রাখার ব্যাপারে এনসিপির প্রবীণ এই নেতার আত্মবিশ্বাসে ঘোর বিপদে কিছুটা অক্সিজেন পেতে চলেছেন উদ্ধব ঠাকরের শিবির। তবে শেষটায় কী হয়, এখন সেটাই দেখার।