এবার দলীয় কর্মীদের ‘মাতাল’ ও ‘ইডিয়ট’ বলে প্রকাশ্যে ভর্ৎসনা করলেন মহুয়া মৈত্র

9
kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি: ফের বেফাঁস মন্তব্য করলেন কৃষ্ণনগরের তৃণমূল সাংসদ মহুয়া মৈত্র। নদিয়ার করিমপুর বিধানসভার তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থী বিমলেন্দু সিংহ রায়ের প্রচারে এসেছিলেন তিনি। সেখানে মহুয়া মৈত্র নিজের দলের কর্মীদের ‘মাতাল’ ও ‘ইডিয়ট’ বলে প্রকাশ্যে ভর্ৎসনা করলেন। এদিন করিমপুর বিধানসভার তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থী বিমলেন্দু সিংহ রায়ের সমর্থনে রোড শো করেন মহুয়া মৈত্র। উপস্থিত ছিলেন দেব, সায়ন্তিকা, শতাব্দী, সোহম। তারকাদের দেখতে ভিড় জমান প্রচুর মানুষ। উপস্থিত ছিলেন দলের অনেক কর্মী-সমর্থক। ভিড় থাকায় প্রচারের গাড়ি ধীর গতিতে চলতে থাকে। যা দেখে রীতিমতো ক্ষেপে ওঠেন মহুয়া মৈত্র। এরপরই মাইক্রোফোন হাতে নিয়ে কর্মীদের ‘মাতাল’ বলে ভর্ৎসনা করেন তিনি। পাশাপাশি পুলিশের বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে ক্ষোভ উগরে দেন মহুয়া। তার এই মন্তব্য ঘিরে ফের সোরগোল শুরু হয়েছে।

এদিন, অভিনেতা-অভিনেত্রীদের নিয়ে তৃণমূল সাংসদ যে রোড শো করছিলেন স্বভাবতই সেখানে ভিড় জমে যায় সাধারণ মানুষের। ছিলেন প্রচুর দলীয় কর্মী-সমর্থকও। ফলে একটা হুলুস্থুল কাণ্ড বাধে সেখানে। যে গাড়িতে ছিলেন মহুয়া মৈত্র, সেই গাড়ি ভিড়ের চাপে এগোতে পারছিল না। সেই সময় মাইক্রোফোন হাতে নিয়ে রীতিমতো ধমক দিতে থাকেন মহুয়া। উত্তেজিত ভাবে তিনি বলেন, ‘অসভ্য লোকজন, তোমরা কেন মেয়েদের ঠেলছো’। তারপর গাড়ি থেকে একজনের দিকে আঙুল উঁচিয়ে দলীয় কর্মীদের উদ্দেশে তাকে বলতে শোনা যায়, ‘সরাও মাতালটাকে’। তারপর তিনি পুলিশকে নির্দেশ দিয়ে বলেন সামনে থেকে ভিড় সরিয়ে দিতে।

উল্লেখ্য, গত ৭ ডিসেম্বর নদিয়ার গয়েশপুরে দলীয় কর্মীসভায় সাংবাদিকদের তিনি ‘দুই পয়সার প্রেস’ বলেছিলেন। তাঁর সেই মন্তব্য নিয়ে নিন্দা ও সমালোচনার ঝড় বয়ে যায়। পরে তিনি সাফাই দিয়ে বলেছিলেন, ‘অন্যের আবেগে আঘাত করতে পারে, এমন কুকথা অথচ সঠিক কথা বলার জন্য আমি ক্ষমাপ্রার্থী।’ সেই মহুয়া মহুয়া মৈত্রকে এদিন আবার কু-কথা বলতে শোনা গেল। এবার নিজের দলের কর্মীদের ‘মাতাল’ ও ‘ইডিয়ট’ বলে প্রকাশ্যে ভর্ৎসনা করলেন।