‘ভোটের সময় বাইরে থেকে কোনও লোক যেন কলকাতায় না আসে’, প্রার্থীদের উদ্দেশ্যে কড়া বার্তা মমতার

18
Mamata Banerjee
কলকাতা পুরভোট নিয়ে প্রার্থীদের কড়া বার্তা দিলেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

মহানগর ডেস্ক: দোরগোড়ায় দাঁড়িয়ে কলকাতার পুরভোট। আগামী ১৯ ডিসেম্বর কলকাতার ১৪৪ টি ওয়ার্ডে রয়েছে নির্বাচন। তার আগেই দলীয় প্রার্থীদের কড়া বার্তা দিলেন তৃণমূল সুপ্রিমো। সম্প্রতি ভোটদানে বাধা দিলে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে দলের পক্ষ থেকে এমন টা জানিয়ে ১৪৪ জন প্রার্থীকে কড়া বার্তা দিয়েছিল তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। এবার পুরভোট নিয়ে দলের ভাবমূর্তি যাতে কোনও ভাবেই নষ্ট না হয় তাও স্পষ্ট ভাবে বুঝিয়ে দিলেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

তাঁর কথায় ভোটে যেন ওয়ার্ডের বাইরের লোক কোনও ভাবেই উপস্থিত না থাকে। এমনকি কলকাতার বাইরের নেতারা শুধুমাত্র প্রচারে আসতে পারেন। এর থেকে বেশি কিছু নয়। তৃণমূল সূত্রে জানা গিয়েছে, বৃহস্পতিবার দলের নেতাদের উদ্দেশ্যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, কলকাতার আশেপাশে যারা থাকেন, তাঁরা এসে শুধুমাত্র প্রচার করতে পারেন। তবে প্রচারের কাজ যেন শুধু বক্তৃতাতেই সীমাবদ্ধ থাকে। তার থেকে বেশি কিছু নয়। প্রচারে বক্তিতা ছাড়া ঐ নেতাদের আর কোনও ভূমিকা যেন না থাকে। অর্থাৎ তৃণমূল নেত্রীর কথায়, নিজের ক্ষমতার জোরে জিততে হবে পুরভোট। বাইরের থেকে কোনও লোক যেন ভোটের দিন কলকাতায় না বসে থাকে।

তৃতীয়বার বাংলার মসনদে বসার পর তৃণমূল কংগ্রেসের একটাই লক্ষ্য, ২০২৪। অর্থাৎ দিল্লির মসনদ। তাই নতুন করে দলের স্ট্রাকচার তৈরি করছে শাসক দল। দলীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, পুরভোটে যদি ভোটদানে বাধা দেওয়ার মতো কোনও ঘটনা সামনে আসে, তার প্রভাব ২০২৪-এর লোকসভা নির্বাচনে পড়তে পারে। তাই এখন থেকেই বিশেষ বার্তা দেওয়া হচ্ছে দলের শীর্ষ নেতৃত্বের তরফে। যদিও অন্যদিকে গেরুয়া শিবিরের দাবি, এগুলি তৃণমূলের জয়ের জন্য রণকৌশল। বিজেপি নেতারা বাইরে অন্য রকমের বার্তা দিলেও তাদের অন্দরে রয়েছে আলাদা স্ট্র্যাটিজি। কারণ সম্প্রতি জয়প্রকাশ মজুমদার জানিয়েছিলেন, এইসব নির্দেশিকা ও ভেতরের নির্দেশিকার মধ্যে আকাশ-পাতাল তফাৎ রয়েছে।