রক্তাক্ত শিক্ষাঙ্গন, আক্রান্ত ঐশীদের পাশে দাঁড়াতে দিল্লিতে প্রতিনিধিদল পাঠাচ্ছেন মমতা

10
mamata jnu

Highlights

  • বিশ্ববিদ্যালয়ে ‘গেরুয়া’ তাণ্ডবের পরই সক্রিয় হয়ে উঠলেন তৃণমূল নেত্রী
  • দিল্লিতে আক্রান্ত পড়ুয়াদের পাশে দাঁড়াতে তৃণমূলের প্রতিনিধিদল পাঠানোর কথাও ঘোষণা করেন
  • ব্যখ্যা করার মতো ভাষা নেই। এটা আমাদের গণতন্ত্রের পক্ষে লজ্জা

 

মহানগর ওয়েবডেস্ক: শিলিগুড়িতে সিএএ-এনআর বিরোধী সভা থেকে ফের একবার আন্দোলনকারী ছাত্রদের পাশে দাঁড়ানোর কথা ঘোষণা করেছিলেন মমতা। রবিবার জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ে ‘গেরুয়া’ তাণ্ডবের পরই সক্রিয় হয়ে উঠলেন তৃণমূল নেত্রী। গতকাল রাত সাড়ে নয়টা নাগাদ টুইট করে এই ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ তিনি জানান। একই সঙ্গে দিল্লিতে আক্রান্ত পড়ুয়াদের পাশে দাঁড়াতে তৃণমূলের প্রতিনিধিদল পাঠানোর কথাও ঘোষণা করেন।


টুইটে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় লিখেছেন, ‘জেএনইউতে পড়ুয়া এবং শিক্ষকদের ওপরে বর্বরোচিত হামলার তীব্র নিন্দা করছি। এমন ঘৃণ্য ঘটনার ব্যখ্যা করার মতো ভাষা নেই। এটা আমাদের গণতন্ত্রের পক্ষে লজ্জা। জেএনইউ-র প্রতি সংহতি জানাতে দীনেশ ত্রিবেদীর নেতৃত্বে তৃণমূলের একটি প্রতিনিধি দল দিল্লি যাচ্ছে।’ এই দলে প্রাক্তন সাংসদ দীনেশ ত্রিবেদী ছাড়াও সাংসদ সাজদা আহমেহ, বিবেক গুপ্ত ও মানস ভূঁইয়া থাকবেন বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী।


ছাত্র সংসদের সভানেত্রী বাংলার মেয়ে ঐশী ঘোষ, অধ্যাপিকা সুচরিতা সেন সহ বাকিদের পাশে দাঁড়িয়েছেন ডায়মন্ড হারবারের সাংসদ তথা যুব তৃণমূল সভাপতি অভিষেক বন্দোপাধ্যায়ও। তিনি টুইট করে লিখেছেন, ‘আমি জেএনইউ-র ঘটনায় মর্মাহত। নৃশংসভাবে ছাত্রদের ওপর হামলা চালানো হয়েছে। পুলিশের উচিৎ ছিল সঙ্গেসঙ্গে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা। বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে ঢুকে পড়ুয়াদের ওপর হামলা চালানো কোনও দেশ এগোতে পারে না কখনই।’