মেয়ের বিয়েতে মোদীকে আমন্ত্রণ অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মীর, শুভেচ্ছাবার্তা পাঠালেন প্রধানমন্ত্রী

7
national news

মহানগর ওয়েবডেস্ক: দেশের প্রধানমন্ত্রী তিনি। অত্যন্ত ব্যস্ত মানুষ। এক সামান্য অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মীর মেয়ের বিয়ের আমন্ত্রণে তিনি সাড়া দেবেন না এমনটা ধরেই নিয়েছিল তামিলনাড়ুর রাজা শেখরণ পরিবার। কিন্তু শনিবার সকালে রীতিমতো ওই পরিবারকে রীতিমতো অবাক করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। স্বশরীতে উপস্থিত না হলেও মেয়ের বিয়ে উপলক্ষে নব দম্পতিকে শুভেচ্ছা বার্তা পাঠিয়ে আশীর্বাদ করলেন তিনি।

তামিলনাড়ুর ভেলোরের বাসিন্দা টিএস রাজাশেখরণ। যিনি অবসরপ্রাপ্ত চিকিৎসক গবেষক ও সুপারভাইজার। আগামী ১১ সেপ্টেমবর তাঁর মেয়ে রাজশ্রীর বিয়ে। সেই উপলক্ষ্যে বাড়িতে তোড়জোড় চূড়ান্ত পর্যায়ে। আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে সমস্ত আত্মীয় পরিজন ও বন্ধু বান্ধবকে। মেয়ের বিয়ের জন্য আমন্ত্রিতদের চিঠি পাঠানোর সময় একটি চিঠি তিনি পাঠান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বাসভবনেও। তবে ভাবেননি ব্যস্ততার মাঝখান থেকে তাদের জন্য আলাদা সময় দেবেন প্রধানমন্ত্রী। শনিবার সেই নিমন্ত্রণের প্রেক্ষিতে হবু দম্পতীকে আশীর্বাদ দিয়ে পাল্টা চিঠি এল নরেন্দ্র মোদীর তরফ থেকে। চিঠিতে নরেন্দ্র মোদী লেখেন, ‘আপনার কন্যা ডা: রাজশ্রী ও ডা: সুদর্শনের বিয়ের আমন্ত্রণপত্র পেয়ে আমি অত্যন্ত আনন্দিত। আপনাকে ধন্যবাদ এমন একটি শুভ মুহূর্তে উপস্থিত থাকার অনুরোধ জানিয়ে আমায় আমন্ত্রণ করার জন্য।’ পাশাপাশি নরেন্দ্র মোদী ওই হবু দম্পতিকে শুভেচ্ছাও দেন তাঁর চিঠিতে।

এদিকে নরেন্দ্র মোদীর ওই চিঠি পেয়ে যারপরনাই খুশি ওই পরিবার। পরিবারের তরফে জানানো হয়েছে ওই চিঠি তাঁরা বাঁধিয়ে রাখবেন বাড়িতে। তাঁদের কথায় প্রধানমন্ত্রী না এলেও তাঁর এই চিঠিতে অত্যন্ত খুশি তাঁরা। এই প্রসঙ্গে রাজাশেখরণ বলেন, উনি অত্যন্ত ব্যস্ত মানুষ। আসবেন না জেনেও আমন্ত্রণ জানিয়েছিলাম ওনাকে। তবে উনি যে ওই আমন্ত্রণপত্রের পাল্টা শুভেচ্ছাবার্তা পাঠাবেন এটা আমাদের ধারনার বাইরে ছিল।