করোনার থাবা চট শিল্পে, ঘাটতি দেখা দিচ্ছে কাঁচামালের

6
jute mill

নিজস্ব প্রতিনিধি:  দেশের সঙ্গে রাজ্যের করোনা পরিস্থিতির অবনতি হচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে চট শিল্পে কাঁচামালের ঘাটতি দেখা দিয়েছে। যদিও বা কাঁচামাল পাওয়া যাচ্ছে, তার দাম অনেক বেড়ে গিয়েছে। এই অবস্থায় আয়-ব্যয়ের সামঞ্জস্য রাখা সম্ভব হচ্ছে না। এর ফলে বেশ কিছু চটকল বন্ধ হয়ে যেতে পারে বলে বিশেষজ্ঞরা আশঙ্কা প্রকাশ করছেন।

এক সংবাদংস্থাকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ইন্ডিয়া জুটমিল অ্যাসোসিয়শনের চেয়ারম্যান রাঘব গুপ্তা সংবাদ সংস্থাকে জানিয়েছেন, প্রায় পাঁচ থেকে সাত লক্ষ বেল পাটের ঘাটতি রয়েছে। কুইন্টাল প্রতি দাম আট হাজার টাকার বেশি। এই পরিস্থিতিতে ভোটের পর উৎপাদন কাটছাঁট হতে পারে। যার জেরে বিভিন্ন মিল বন্ধ হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, কাঁচামালের দাম ব্যাপক পরিমাণে বেড়ে গিয়েছে। তার সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে উৎপাদন করা অনেক ক্ষেত্রেই সম্ভব হবে না। তার সঙ্গে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। করোনা বৃদ্ধি পরিস্থিতির আরও অবনতি ঘটাতে পারে। রাজ্যে প্রায় ৬০টি জুট মিল রয়েছে। তার প্রায় এক তৃতীয়াংশ বন্ধ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।  বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, এই পরিস্থিতি থেকে সরকার উদ্ধার করতে পারে। সরকারকে কাঁচামালের জোগানে কড়া বন্দোবস্ত করতে হবে। না হলে, পরিস্থিতি ভয়ানক হতে পারে। অনেক কারখানা বন্ধের প্রবল সম্ভাবনা জেখা দিয়েছে।

বজবজ জুট মিলের তরফে ইতিমধ্যে সাসপেন্স অফ ওয়ার্কের নোটিশ দিয়েছে। আইজেএমএ-র প্রাক্তন চেয়ারম্যান সঞ্জয় কাজারিয়া জানিয়েছেন, কঠোর করোনা বিধি লাঘু হলে চটশিল্পে ভয়ানক পরিস্থিতির সৃষ্টি হতে পারে। সেক্ষেত্রে ব্যাপক পরিমাণে উৎপাদন ব্যাহত হবে। যার জেরে অনেক চট শিল্পের সঙ্গে জড়িত থাকা কর্মীরা কাজ হারাতে পারেন।