মেসির যোগদানে পরিবর্তন গোটা প্যারিসে, বিশ্বজুড়ে স্কুলও খুলতে চলেছে পিএসজির মার্কেটিং টিম

22
Lionel Messi joined Paris Saint Germain FC . Changes have started not only in PSG but also will be in entire world..
লিওনেল মেসি

মহানগর ডেস্কঃ রবিবার বার্সায় শেষ মিটে ক্যাম্প ন্যু-তে কান্নায় ভেঙে পড়েছিলেন লিওনেল মেসি। বলেছিলেন, “বাস্তবটাকে মানিয়ে নিতে পারছি না”। তবে বুধবার ঘটনাটা একেবারেই আলাদা। মেসি এখন নতুন দেশে, নতুন বেশে।

মঙ্গলবার সাংবাদিকদের কাছে মেসির বাবা ও তাঁর এজেন্ট বলেন, “মেসি প্যারিসেই যেতে চলেছে”। এই খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই প্যারিসের বিমান বন্দরের বাইরে প্রায় একলক্ষের কাছাকাছি মানুষের ভিড় জমে যায়। অন্যদিকে প্যারিস স্টেডিয়ামের বাইরে লক্ষাধিক মানুষের সমাগমে পুলিশ পরিস্থিতির সামাল দিতে গিয়ে কার্যত ব্যর্থ হয়।

এর পরেই বুধবার সপরিবারে প্যারিসে আসেন ফুটবলের ঈশ্বর। সেখানে তিনি সাংবাদিকদের সামনে বলেন, “বার্সার সঙ্গে এতদিনের সম্পর্ক ছিন্ন করে দেওয়া আমার জন্য যথেষ্ট কষ্টের ছিল। তবে সেই সময় আমার পাশে ছিল স্ত্রী ও আমার তিন সন্তান”।

সাক্ষাৎকারে বছর ৩৪ এর এই ফুটবলারকে অনেকটাই আত্মবিশ্বাসী দেখা যায়।  নতুন ক্লাবে এসে শুরু হয় মেডিকেলচেকাপ। এরপর ৩০ নম্বর নীল জার্সি পড়ে মাঠে পা রাখেন এই কিংবদন্তি। অন্যদিকে আরও একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে গণমাধ্যমে যেখানে বার্সার স্টেডিয়াম থেকে মেসির ছবি আঁকা বিশাল স্টিকার খুলে নেওয়া হচ্ছে। এই ভিডিও ভক্তদের পুরানো স্মৃতি মনে করাচ্ছিল। তবে বুধবার বেশ খুশমেজাজেই থাকতে দেখা যায় লিও-কে।

মেসি আসার প্যারিসের সমর্থকদের মধ্যে একটি গুঞ্জন রটে যে, তাহলে হয়তো কিলিয়ন এমবাপে দল ছাড়ছেন। সেক্ষেত্রে পিএসজির পক্ষ থেকে সাফ জানিয়ে দেওয়া হয় “এমবাপে ভালো দল চাইছিলেন। তবে মেসি আসার পর সেই কমতিও পূরণ হয়ে গেছে। তাই তিনি হয়তো অন্য বিকল্প কিছু চাইবেন না”।

শুধু তাই নয় লিও দলে যোগদান করার পর পরই মাঠে ও ক্লাবের বাইরেই নয় বরং গোটা প্যারিস জুড়েই আমূল পরিবর্তন হতে থাকে। মেসি ৩০ নম্বর জার্সি পড়ার ৩০ মিনিটেই মধ্যেই প্রায় দেড় লক্ষ জার্সি অডার করেন পিএসজির সমর্থকরা। এছাড়াও পিএসজির সঙ্গে যুক্ত কোম্পানি গুলির শেয়ার দর দ্রুত বাড়তে থাকে। এতেই শেষ নয় মেসিকে আদর্শ করে পিএসজির মার্কেটিং টিম কাজে নেমে পড়েছে বিশ্বজুড়ে নানা দেশে ফুটবল স্কুল খোলার লক্ষ্যে। সেখান যথাযথ ভাবে ট্রেনিং দেওয়া হবে ছেলেমেয়েদের।

অন্যদিকে মেসি দলে এসেই জানান, “এখানে আমার অনেক বন্ধু আছে। তাই তাদের সঙ্গে খুব তাড়াতাড়ি মাঠে নামতে চাই”।আরও বলেন, “আমি এমবাপেকে প্রতিপক্ষ হিসাবে পেতাম তবে ওর সঙ্গে এক দলে খেলার ইচ্ছা ছিল যা সত্যি হয়েছে”।