BJP: ‘মিসটেক ‘! রথযাত্রার শুভেচ্ছা পোস্টারে পড়ল না দিলীপ ঘোষের ছবি

67
'মিসটেক '! রথযাত্রার শুভেচ্ছা পোস্টারে পড়ল না দিলীপ ঘোষের ছবি

মহানগর ডেস্ক: ২১’র বিধানসভা নির্বাচনের পর একাধিকবার সংঘাতে জড়িয়েছে বিজেপি (BJP) বিধায়ক হিরন চট্টোপাধ্যায় (Hiran Chatterjee) ও বিজেপি সাংসদ দিলীপ ঘোষ (Dilip Ghosh)। কখনও পোস্টার পড়লে সেখানে শুভেন্দু অধিকারী, নরেন্দ্র মোদির ছবির সঙ্গে হিরনের ছবি থাকলেও থাকত না দিলীপ ঘোষের ছবি। আবার দিলীপ ঘোষের ছবি থাকলে থাকত না হিরনের ছবি। আজ শুভ রথযাত্রা। আর এই বিশেষ দিনে একই ছবি ফুটে উঠল। পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার খড়গপুর পৌরসভার ২৩ নম্বর ওয়ার্ডে ইন্দা মোড় এলাকায় সৌমেন দাস ওরফে বিলু রথযাত্রা উপলক্ষে একটি ব্যানার লাগান।

সেই ব্যানারে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী, খড়্গপুরের বিধায়ক হিরণ চট্টোপাধ্যায় এবং ২৩ নম্বর ওয়ার্ডের বিজেপির শক্তির কেন্দ্র প্রমুখ সৌমেন দাসেরও ছবি রয়েছে। কিন্তু এই ব্যানারে উধাও মেদিনীপুরের সাংসদ তথা বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি দিলীপ ঘোষের ছবি।

যা নিয়ে ইতিমধ্যেই শুরু হয়েছে রাজনৈতিক তরজা। এই প্রসঙ্গে সৌমেন দাস জানিয়েছেন, এটি একটি মিসটেক এর থেকে বেশি কিছু নয়, পরবর্তীকালে কোনও পোস্টার লাগালে সেটাতে এমন যাতে না হয় তার দিকে নজর রাখবো আমরা। এর আগে একাধিকবার রাজনৈতিক বিষয় নিয়ে সংঘাতে জড়িয়ে ছিল হিরন অনুগামী ও দিলীপ অনুগামীরা।

ছবি দিয়ে রাজনীতি বিজেপি করে না। দিলীপ ঘোষ পশ্চিমবাংলার রাষ্ট্রবাদী মানসিকতা মানুষের রক্তে দিলীপ ঘোষ আছেন। দিলীপ ঘোষকে ছবি দিয়ে নেতা বানাতে বা বানানোর দরকার নেই। দিলীপ ঘোষ মানুষের রক্তে ও বুকে আছেন। যিনি এটা দিয়েছেন তাঁকে দীর্ঘদিন ধরে আমরা সাংগঠনিক ভাবে দেখছি না। উনি ঠিকই বলেছেন ‘প্রিন্ট মিসটেক’। উনি প্রিন্ট ঠিকভাবে করতে পারেননি। হতে পারে ওঁর নিজস্ব প্রিন্টার আছে। উনি নিজেই প্রিন্ট করেন। সেই হিসেবে প্রিন্ট মিসটেক হতেই পারে। এমনটাই মন্তব্য করলেন, খড়গপুর শহর বিজেপির উত্তর মন্ডল সভাপতি।