Jadavpur: পূর্ব যাদবপুরে মহিলার রহস্যমৃত্যু, ফোন বন্ধ করে উধাও লিভ-ইন পার্টনার

95

মহানগর ডেস্ক: ফের শহরে সন্দেহজনক মৃত্যু। পূর্ব যাদবপুরের (Jadavpur) ছিট কালিকাপুর দরজা ভেঙে উদ্ধার এক মহিলার মৃতদেহ। উধাও সঙ্গী। গলায় রয়েছে ফাঁস দেওয়ার দাগ। মহিলাকে শ্বাসরোধ করে খুন করা হয়েছে এমনটাই দাবি পুলিশের। বাড়িওয়ালার কাছে জমা দেওয়া পরিচয় পত্র অনুযায়ী, মৃতের নাম অপর্ণা।

আরও পড়ুন: ত্রিপুরায় জয়ী মানিক সাহা, হাত শিবিরের মান রক্ষা করলেন সুদীপ রায় বর্মন

জানা গিয়েছে, পূর্ব যাদবপুরে ছিট কালিকাপুরে একটি ঘর ভাড়া নিয়ে থাকতেন বছর ৩০ থেকে ৩৫-এর এক মহিলা এবং তার লিভ ইন পার্টনার। এদিন সকালে আচমকাই ওই লিভ ইন পার্টনারের আচরণে সন্দেহ জাগে বাড়ির মালিকের। তিনি যাদবপুর থানায় ফোন করে জানান বিষয়টি। তার পরই পুলিশ আধিকারিকরা ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখেন দরজা বাইরে থেকেই বন্ধ করা রয়েছে। দরজার তালা ভেঙে ঘরে ঢুকে পুলিশ দেখে গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় মাটিতে পড়ে রয়েছে ওই মহিলার মৃতদেহ। স্থানীয়রা জানান, ওই মহিলার লিভ ইন পার্টনারকে আজ সকালেই এলাকা থেকে বের হতে দেখেছেন তাঁরা। পুলিশের তরফ থেকে ফোন করা হয়েছে ওই ব্যক্তির ফোনেও। কিন্তু তাঁর ফোন সুইচড অফ রয়েছে। ইতিমধ্যেই লালবাজারের গোয়েন্দা বিভাগকে খবর দেওয়া হয়েছে।

মহিলার মৃতদেহ দেখে পুলিশের প্রাথমিক অনুমান, গলায় ফাঁস লাগিয়ে খুন করা হয়েছে ওই মহিলাকে। পুলিশ সূত্রে খবর, পূর্ব যাদবপুরের সমস্ত সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখা হবে। নিশ্চিত না হয়ে কোন কিছুই স্পষ্ট ভাবে বলতে চাইছে না পুলিশ। তবে মৃতের লিভ ইন সঙ্গীর দিকেই রয়েছে সন্দেহের তীর। জানা যাচ্ছে, গত তিন মাস ধরে ওই বাড়িতে ভাড়া থাকতেন এই যুগল। বাড়িওয়ালার কাছে জমা দেওয়া পরিচয় পত্রে মহিলাটি, পুরুষ সঙ্গীটিকে স্বামী বলে আখ্যা দিয়েছিলেন।

জানা যাচ্ছে, যাদবপুর এলাকারই আশেপাশে থাকতেন মৃতের দিদি এবং জামাইবাবু। কিন্তু এদিন পুলিশ তাঁর দিদি – জামাইবাবুর খোঁজ করতে ওই এলাকায় গিয়ে দেখে, তাঁরাও নেই বাড়িতে। তাঁদের দরজায় তালা দেওয়া। ইতিমধ্যেই পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে সংগ্রহ করেছে নমুনা। মৃতদেহ নিয়ে যাওয়া হয়েছে ময়নাতদন্তের জন্য।