স্কুলে ভর্তি নিয়ে ধুন্ধুমার বারাসতে, খুদে পড়ুয়াদের বিক্ষোভে অবরুদ্ধ জাতীয় সড়ক

34
kolkata news

Highlights

  • পঞ্চম শ্রেণিতে ভর্তি ঘিরে উত্তাল স্কুল লাগোয়া এলাকা
  • খুদে পড়ুয়ারা পালা করে দীর্ঘ সময় ধরে অবস্থান বিক্ষোভ করে
  • অবরোধ করা হয় যশোর রোড ও ৩৪ ও ৩৫ নম্বর জাতীয় সড়কের সংযোগস্থলে

 

নিজস্ব প্রতিনিধি, বারাসত: পঞ্চম শ্রেণিতে ভর্তি ঘিরে উত্তাল স্কুল লাগোয়া এলাকা। দফায় দফায় বিক্ষোভ। বিক্ষোভ স্কুলের সামনে ও পরে জাতীয় সড়কে। স্কুলের গেটে তালা পড়ায় এদিন পঠনপাঠন ওঠে শিকেয়। প্রধান শিক্ষিকাকে ঘিরে বিক্ষোভ অভিবাবকদের। সকাল থেকে স্কুলের সামনে পথে বসে বিক্ষোভ অবস্থানের পরে খুদে পড়ুয়ারা পালা করে দীর্ঘ সময় ধরে অবস্থান বিক্ষোভ ও পথ অবরোধ করতে থাকে যশোর রোড ও ৩৪ ও ৩৫ নম্বর জাতীয় সড়কের সংযোগ স্থলে। আধ ঘণ্টা চলে অবরোধ। ঘটনাটি বারাসত কালীকৃষ্ণ গার্লস হাইস্কুলের।

প্রধান শিক্ষিকা মৌসুমী সেনগুপ্ত ভর্তি প্রক্রিয়া নিয়ে নিজের অবস্থানে অটল থাকেন। পরে বিক্ষোভে স্কুলে অসুস্থ হয়ে পড়েন। তিনি জানিয়েছেন, নিয়ম না মেনে অন্যায় ভাবে ভর্তির বিপক্ষে তিনি। তাঁকে দীর্ঘ সময় অভিভাবকরা স্কুলে ঢুকতেই দেননি। বিরাট পুলিশ বাহিনী নিয়ন্ত্রণ করতে পারেনি এই বিক্ষোভ। জেলা স্কুল পরিদর্শক সুজিত কুমার মাইতি বিষয়টি সম্পর্কে জানতে এসে বিক্ষোভের মুখে পড়েন।

কালীকৃষ্ণ উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ে ২২৫ জনের ভর্তির কথা। এর মধ্যে প্রাথমিক বিভাগের উত্তীর্ণ ১৫৪ জনকে ভর্তি নিয়ে প্রধান গোলযোগ। প্রাথমিক বিভাগের ৬৯ জনের তালিকা ইতিমধ্যে টাঙিয়ে দেওয়া হয়েছে। অর্থাৎ বাকি ৮৫ জনের ভর্তি নিয়ে বিভ্রান্তি। এর বাইরে ইতিমধ্যে হাইস্কুল কর্তৃপক্ষ ১০৪ জনকে লটারি থেকে মনোনয়ন দেওয়ায় ১০৪ এবং ৬৯ জনের অর্থাৎ ১৭৩ জনের ভর্তি সুনিশ্চিত। রইল বাকি ৫২টি আসন। আর এই আসন নিয়ে যত সমস্যা।

এ বিষয়ে তৃণমূল নেতা ও স্থানীয় পুরপ্রধান সুনীল মুখার্জী জানিয়েছেন, সবাইকে ভর্তি করতে হবে। কিন্তু কী বলছে শিক্ষা দফতর? জটিলতা কাটার ও ছাত্রী ভবিষ্যৎ নিয়ে সুরাহার দিশা না দিয়ে কার্যত বিক্ষোভের মুখ থেকে নিজেকে বাঁচাতে এদিন চম্পট দেন স্কুল পরিদর্শক।