‘আর মাস্ক পরার প্রয়োজন নেই’, ওমিক্রনের দাপট কমায় নয়া নির্দেশিকা জারি ব্রিটেনে

28

মহানগর ডেস্ক: স্বাভাবিক জীবনযাপনের ফিরছে ব্রিটেন। প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন ঘোষণা করেছেন, আর প্রয়োজন নেই মাস্ক পড়ার। কারণ সেখানকার সংক্রমণের হার একেবারেই নিম্নমুখী। তলানিতে গিয়ে ঠেকেছে আক্রান্তের সংখ্যা। এমন পরিস্থিতিতে আগামী সপ্তাহ থেকে বাতিল করা হচ্ছে সমস্ত করোনাকালীন বিধি নিষেধ।

ব্রিটেনে কমেছে ওমিক্রনের দাপট। কমে গিয়েছে সংক্রমণের হার। এমন পরিস্থিতিতে আর work-from-home নয়। আর বাড়িতে বসে কাজ নয়। আর বিধি নিষেধ নয়। সকলেই খোলামেলাভাবে নামতে পারেন পথে। ফিরতে পারেন স্বাভাবিক জীবনযাত্রায়। বুধবার এমনটাই ঘোষণা করলেন ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন।

ব্রিটেনের করোনাকালীন বিধি নিষেধ শেষ হতে আগামী ২৬ জানুয়ারি। আর তারপরের দিন থেকেই অর্থাৎ ২৭ জানুয়ারি থেকেই থাকছে না আর কোন বিধি-নিষেধ। বাড়ি থেকে স্বাভাবিক ছন্দে বেরিয়ে কাজকর্ম ঘোরাফেরা সমস্তটাই করতে পারবেন ব্রিটেনবাসীরা। মাস্ক পড়ার ক্ষেত্রেও থাকছে না বিধিনিষেধ। তবে সাধারণ মানুষের উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রীর উপদেশ যে কোনও জমায়েত কিংবা দীর্ঘক্ষন কোন জায়গায় থাকার থাকলে সেখানে মাস্ক ব্যবহার করাই শ্রেয়।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, ব্রিটেনে করোনা পজিটিভ হলে একান্ত নিভৃতে বাসে থাকতে হয় ৫ দিন। তার পরের দিন অর্থাৎ ষষ্ঠ তম দিন থেকে স্বাভাবিক জীবনে ফেরার জন্য প্রয়োজন হয় করোনার নেগেটিভ রিপোর্টের। এবার সেই সময়সীমাও কমিয়ে আনা যায় কিনা সেদিকেও চিন্তাভাবনা রয়েছে ওই দেশের সরকারের। ব্রিটেনের সরকারের এই সিদ্ধান্তের অত্যন্ত খুশি সেখানকার বাসিন্দারা। চলতি বছরের শুরুতেই সেখানে নামতে শুরু করেছিল করোনার পারদ। আর সেই পারদ এবার তলানিতে গিয়ে ঠেকায় নতুন ঘোষণা করল ও দেশের সরকার।