SSC: শুধু ফেল প্রার্থী নয়, খালি খাতাতেও টাকার বিনিময় দেওয়া হয়েছে চাকরি, ভাইরাল অডিও

125
SSC: শুধু ফেল প্রার্থী নয়, খালি খাতাতেও টাকার বিনিময় দেওয়া হয়েছে চাকরি, ভাইরাল অডিও

মহানগর ডেস্ক: বর্তমানে গোটা রাজ্যের সরগরম করা বিষয় হল এসএসসি (SSC) দুর্নীতি মামলা। যার জল বহুদূর পর্যন্ত গড়িয়েছে। হাত রয়েছে শাসক দলের একাধিক নেতাকর্মীর। প্রাক্তন শিক্ষা মন্ত্রী থেকে বর্তমান শিক্ষা প্রতিমন্ত্রীর নাম রয়েছে। এর পরেই কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশে তদন্তভার কাঁধে তুলে নিয়েছে সিবিআই(CBI)। এই মামলার শুনানিতে বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের এজলাসে একটি অডিও ক্লিপ শুনিয়েছিলেন চাকরিপ্রার্থীদের আইনজীবী।

আদালতে শোনানো অডিও প্রকাশ্যে এসেছে। যেখানে চাকরির জন্য খোলাখুলি টাকা দাবি করতে শোনা গিয়েছে। যেখানে শোনা গিয়েছে যে একজন মহিলা কন্ঠ এবং একজন পুরুষ কন্ঠ। মহিলা প্রশ্ন করছে, ইলেভেন টুয়েলভে নেওয়া হচ্ছে টাকা? অন্যদিক থেকে পুরুষ কন্ঠ বলে, ইলেভেন টুয়েলভে নাইন টেন দুটোতেই নেওয়া হচ্ছে। মহিলা কণ্ঠ বলছে, তাহলে বাজেট কত? পুরুষ কণ্ঠ বলছে ২০ লক্ষ টাকা। বাড়ির কাছে হবে অথচ বাজেট এত বেশি, বলছেন মহিলাকণ্ঠ। আর এরপরই মহিলাকণ্ঠকে পুরুষকন্ঠ জানিয়েছে, প্রচুর দপ্তর নিচ্ছে। সেখানে আমাদের কিছু করার নেই। দপ্তর যদি বেশি টাকা নেয় তাহলে আমরা কি করব। আমরা তো এক লক্ষ্য টাকা নি। আমি এতটা দায়িত্ব নেব ১ লক্ষ্য টাকার জন্য। বাকি তো অফিসে চলে যাবে।

আরও পড়ুন: ফের বাড়ল করোনা আক্রান্তের সংখ্যা, গত ২৪ ঘণ্টায় কোভিডের কবলে পড়েছেন ২১২৪ জন

টাকার অঙ্ক শুনে চমকে উঠেছেন মহিলাকণ্ঠ। একই সঙ্গে তিনি জানিয়েছেন, তিনি বিদ্যাসাগর থেকে বিএড করেছেন। পুরুষ কণ্ঠ দিয়েছেন জানিয়েছে, প্রাইমারি যদি ১৪ থেকে ১৫ লক্ষ টাকা হয়, তাহলে এটা কেন হবেনা। পুরুষকন্ঠ জানিয়েছে, তারা ফেল করা ব্যক্তিকেও টাকার বিনিময়ে চাকরি দিয়েছে। ২২০ জন ফেল প্রার্থীকে টাকার বিনিময়ে চাকরি দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু বর্তমানে ওয়েস্ট বেঙ্গল নিয়ম করে দিয়েছে যে ওয়েস্টবেঙ্গলের বিএড হতে হবে। বাইরে থেকে বিএড হলে হবে না।

এছাড়াও পুরুষ কন্ঠ আরও জানিয়েছে, তারা খালি খাতাতেও টাকার বিনিময়ে চাকরি করিয়ে দেন। অন্যদিকে মহিলাকণ্ঠ জানিয়েছেন তিনি পাস candidate। প্যানেলে রয়েছে তার নাম। এই অডিওটি সত্যতা যাচাই করে দেখেনি মহানগর ২৪x৭। কিন্তু এই অডিওটি ভাইরাল হতেই রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী তথা বিধায়ক উপেন বিশ্বাসের একটি ফেসবুক পোস্ট নিয়ে ফের রাজনৈতিক চর্চা শুরু হয়ে যায়। ‘রঞ্জন টাকার বিনিময়ে চাকরি দিয়েছিল’। বারবার উঠে আসছে সেই ‘ রঞ্জন ‘ নামটি।

আরও পড়ুন: CBI দপ্তরে হাজিরা দিলেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়