Partha Chatterjee: ‘পার্থ আর প্রভাবশালী নন, বিধায়ক পদ থেকেও ইস্তফা দিতে পারেন’, আদালতে জানালেন আইনজীবী

58

মহানগর ডেস্ক: যে কোনও শর্তে আজ জামিল দেওয়া হোক পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে (Partha Chatterjee) এমনটাই দাবি রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রীর আইনজীবীর। আদালতে পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের আইনজীবী বলেন, পার্থ বাবু আর প্রভাবশালী ব্যক্তি নেই। তাঁর মন্ত্রিত্ব পদ খারিজ করা হয়েছে। এমনকি দলের সঙ্গেও সম্পর্ক নিয়ে আর। শুধুমাত্র রয়েছে তাঁর বিধায়ক পদ। আদালত বললে সেই পদ থেকেও সরে দাঁড়াতে পারেন তাঁর মক্কেল, এমনটাই আদালতকে জানালেন আইনজীবী কৃষ্ণচন্দ্র দাস।

আরও পড়ুন: ফের অনুব্রতকে তলব সিবিআইয়ের, সোমবার গরুপাচার মামলায় হাজিরার নির্দেশ

শুক্রবার দীর্ঘক্ষণের সাওয়াল – জবাব পর্বের শেষে শুনানি স্থগিত করে আদালত। শুনানি চলাকালীন পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে ওঠা প্রভাবশালী ব্যক্তির তত্ত্ব খারিজ করার দাবি জানান তাঁর আইনজীবী। এদিন আইনজীবী বলেন, তাঁর মক্কেলের বিরুদ্ধে কোনও রকম ভাবে ঘুষ নেওয়ার কোনও প্রমাণ পায়নি ইডি, সিবিআই কেউই। এমনকি পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে কোন বেআইনি কাজ করার বা তাঁর বেআইনি সম্পত্তিরও হদিস মেলেনি, অর্থাৎ অযথাই তাঁকে ফাঁসানোর চেষ্টা করা হচ্ছে, বলে দাবি আইনজীবী কৃষ্ণচন্দ্র দাসের।

এর উত্তরে ইডির আইনজীবী বলেন, পার্থর সিজার লিস্ট খতিয়ে দেখে ভবিষ্যতে ওঁনার সঙ্গে কথাবার্তা বলার প্রয়োজন রয়েছে। এছাড়াও ২০১২ সালে অনন্ত টেক অ্যাপ লিমিটেড সংস্থার নামে একটি শেয়ার কেনাবেচা হয়েছিল। যেখানে স্পষ্ট উল্লেখ রয়েছে অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের রথ তলার বাড়ির ঠিকানা। এই শেয়ার কেনাবেচার নথিতে পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের নাম স্পষ্ট ভাবে ধরা পড়েছে। ৩১টি এলআইসির খোঁজ পাওয়া গিয়েছে। যেগুলো অর্পিতার নামে থাকলেও ওই এলআইসি পলিসিগুলির নমিনি হিসেবে উল্লেখ করা রয়েছে পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের নাম।

ওদিকে, সরকারি পক্ষের আইনজীবী, ‘প্রথম শ্রেণির কয়েদি’ হিসাবে অর্পিতা মুখোপাধ্যায়কে জেলে রাখার আবেদন করেছেন। কারণ হিসেবে আইনজীবী সোহম বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, অর্পিতা উচ্চশিক্ষিত। তিনি তদন্তের কাজে ইডিকে সাহায্য করছেন। তাই তাঁর জীবনের ঝুঁকি রয়েছে। সুতরাং তাঁকে খাবার ও জল পরীক্ষা করে দিতে হবে।