অরুণাচল প্রদেশের পাঁচ গ্রামবাসীকে অপহরণ করেছে চিনা সেনা, দাবি কংগ্রেস বিধায়কের

7

মহানগর ওয়েবডেস্ক: দীর্ঘদিন ধরেই লাদাখ সীমান্তে মুখোমুখি ভারত ও চিনের সেনা। সেখানে উত্তাপ কমার কোনও লক্ষণ আপাতত নেই। সম্প্রতি সেই উত্তেজনা আবার বৃদ্ধি পেয়েছে। এরই মাঝে অরুণাচলের এক কংগ্রেস বিধায়ক দাবি করলেন, স্থানীয় আপার সুবান্সিরি জেলার নাচো গ্রাম থেকে পাঁচজন ভারতীয়কে অপহরণ করে নিয়ে গিয়েছে চিনা সেনা।

কংগ্রেস বিধায়ক নিনং এরিংয়ের দাবি, ‘চিনের সেনা অরুণাচল প্রদেশের নাচো গ্রামের পাঁচজন ছেলেকে অপহরণ করে নিয়ে গিয়েছে। রাশিয়ায় কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং যখন চিনের প্রতিরক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে বসেন, তখনই এই ঘটনা ঘটে। চিনের সেনা খুব খারাপ একটা বার্তা দিল।’ স্বাভাবিক ভাবেই ওই কংগ্রেস নেতার ওই অভিযোগের পর শোরগোল পরে গিয়েছে।

উল্লেখ্য, গালোয়ান ভ্যালির মতোই ২৯ আগস্ট রাতে বেশ বড় সংখ্যক চিনা সেনা একসঙ্গে ভারতীয় সীমান্তে অনুপ্রবেশের চেষ্টা করছিল। কিন্তু গালোয়ানের ঘটনা থেকে শিক্ষা নিয়ে তৈরি ছিল ভারতও। প্রচুর সংখ্যক ভারতীয় সেনাও সঙ্গে সঙ্গে সঙ্গে চিনা সৈনিকদের বাধা দেন। আগের বার ভারতীয় জওয়ানরা সংখ্যায় কম থাকায় আক্রমণ করার সুযোগ পেয়েছিল চিন। কিন্তু এবার ভারত পাল্টা দিলে, আর এগোতে পারেনি লাল ফৌজ।

২৯ তারিখের ওই ঘটনার কথা সোমবার এক বিবৃতিতে জানায় ভারতীয় সেনা। ভারতীয় সেনার মুখপাত্র কর্নেল আমন আনন্দ এক বিজ্ঞপ্তিতে জানান, ‘পূর্ব আলোচনার ভিত্তিতে সীমান্তে যে স্থিতাবস্থায় পৌঁছানো গিয়েছিল তা ফের বিঘ্নিত করার চেষ্টা করেছে চিনের পিপলস লিবারেশন আর্মি। প্যানগং লেকের দক্ষিণ পাড়ে চিনা সেনার অনুপ্রবেশের চেষ্টা আগে ভাগেই রুখে দেন ভারতীয় সেনা জওয়ানরা। ভারতীয় সেনা সব সময় সীমান্তে শান্তি বজায় রাখতে ইচ্ছুক কিন্তু একই সঙ্গে নিজেদের সীমান্ত রক্ষার জন্যও ভারতীয় সেনা বদ্ধপরিকর।’