এখনই গ্রেফতার নয়, সিআইডি তদন্তের প্যাঁচে পড়েও আদালতের রায়ে স্বস্তিতে মুকুল

8
kolkata news

Highlights

  • নদিয়ার কৃষ্ণগঞ্জের তৃণমূল বিধায়ক খুনে কিছুটা স্বস্তিতে মুকুল
  • সিআইডি তদন্ত চললেও এখনই তাঁকে গ্রেফতার করা যাবে না
  • মুকুল বলেন, মিথ্যা মামলায় ফাঁসানো হচ্ছে তাঁকে

মহানগর ওয়েবডেস্ক: নদিয়ার কৃষ্ণগঞ্জের তৃণমূল বিধায়ক খুনে শুরু থেকেই চাপে রয়েছেন বিজেপি নেতা মুকুল রায়। ইতিমধ্যেই তাঁর বিরুদ্ধে সিআইডি তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে কলকাতা হাইকোর্ট। এহেন চাপের মুখেই এবার কিছুটা হলেও স্বস্তি ফিরল বঙ্গ বিজেপির ‘চাণক্য’ মুকুল রায়ের জন্য। সিআইডি তদন্ত চললেও এখনই তাঁকে গ্রেফতার করা যাবে না বলে নির্দেশ দিয়ে দিল আদালত।

প্রসঙ্গত, গত বছরের ৯ ফেব্রুয়ারি সরস্বতী পুজোর ঠিক আগের দিন বাড়ি থেকে ঢিল ছোড়া দূরত্বে এক অনুষ্ঠানের মধ্যে খুন হল তৃণমূল বিধায়ক সত্যজিৎ বিশ্বাস। জনবহুল এলাকায় ঘটা এই ঘটনায় আতঙ্কিত হয়ে পড়েন গ্রামবাসীরা। শুরু হয় রাজনৈতিক চাপানউতোরও। পুলিশ ঘটনার তদন্তে নেমে যোগ পায় মুকুল রায়ের। তদন্তের মাঝেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে আঙুল তুলে মুকুল বলেন, মিথ্যা মামলায় ফাঁসানো হচ্ছে তাঁকে। জেনে বুঝে রাজনৈতিক স্বার্থ চরিতার্থের জন্য বিজেপির বিরুদ্ধে মামলা সাজানো হচ্ছে। এই ঘটনায় আগে আগাম জামিনও পেয়েছিলেন মুকুল। সেই মেয়াদ শেষ হওয়ার পর, আদালতে আবেদনের ভিত্তিতে সোমবার কলকাতা হাইকোর্ট জানিয়ে দেয় আগামী এপ্রিল মাস পর্যন্ত নদিয়ার হাঁসখালিথানার অন্তর্গত কৃষ্ণগঞ্জ এর বিধায়ক সত্যজিৎ বিশ্বাস খুনের ঘটনায় বিজেপি নেতা মুকুল রায়কে গ্রেফতার করা যাবে না।

তবে তদন্ত যে জোরকদমে চলবে সে আভাষও এদিন দিয়ে দেয় আদালত। এদিন সিআইডিকে আদালতের তরফে জানিয়ে দেওয়া হয়, মার্চের প্রথম সপ্তাহে আদালতে এই মামলার তদন্ত রিপোর্ট যেন জমা দেয় তদন্তকারী সংস্থা সিআইডি। সোমবার এই নির্দেশ দেন কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি জয়মাল্য বাগচি ও বিচারপতি শুভ্রা ঘোষের ডিভিশন বেঞ্চ। যার জেরে স্বস্তি মিললেও চাপ কমছে না মুকুল রায়ের।

তবে শুধু মুকুল রায় নয়, এই একই মামলাতে মুকুল রায়ের পাশাপাশি বিপাকে পড়েছেন রানাঘাটের বিজেপি সাংসদ জগন্নাথ সরকার। সত্যজিৎ খুনের মামলায় মুকুল রায়ের পাশাপাশি ওই সাংসদেরও যোগ রয়েছে বলে পুলিশের তদন্তে যে রিপোর্ট উঠে এসেছে তার ভিত্তিতে জগন্নাথ সরকারের বিরুদ্ধেও সিআইদি মামলার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সব মিলিয়ে ক্রমাগত চাপ বাড়ছে বিজেপি শিবিরের। যদিও ঘাবড়াবার পাত্র নন বিজেপি সাংসদ জগন্নাথ সরকার। সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছেন, ‘গোটাটাই রাজনৈতিক ষড়যন্ত্র। তবে বিচার ব্যবস্থার প্রতি আমার আস্থা রয়েছে। সিআইডি তদন্তে অবশ্যই সহযোগিতা করব।’