সরকারি নির্দেশ ফুৎকারে উড়িয়ে রাজ্যে বাড়ল বেসরকারি বাসের ভাড়া

6
kolkata news

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: ভাড়া না বাড়ানোর জন্য বেসরকারি বাস সংগঠনগুলিকে অনুরোধ জানিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। যদিও রক্ষা হল না সেই অনুরোধ। মুখ্যমন্ত্রী অনুরোধকে অগ্রাহ্য করেই বৃদ্ধি পেল বেশকিছু রুটের বাস ভাড়া। যে রুটে ভাড়া বৃদ্ধি পেল সেগুলি হল ২২৩ ২২১, ২১৯, ২১৯/১, কেবি-২১, ৯৩, ৩০ডি, ডিএন-৮, ৩০বি, ৩০বি/১, ৪৫এ, ৪৫বি।

বুধবারই শহর ও শহরতলির ১৩ রুটে বাসভাড়া একতরফাভাবেই বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত নেন বাস মালিকেরা। কিন্তু তারপরেও মুখ্যমন্ত্রী তাঁদের অনুরোধ করেন, সাধারণ মানুষের জন্য এখন অন্তত ভাড়া না বাড়াতে। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রীর অনুরোধ মানা কার্যত অসম্ভব বলে জানিয়ে দিয়েছেন বাস মালিকেরা। বাস মালিকদের বক্তব্য, ডিজেলের দাম ক্রমশই বাড়ছে। পেট্রোলের চেয়েও ডিজেলের দাম বেশি। তার উপর দু’মাস ব্যবসা বন্ধ থাকায় প্রচণ্ড লোকসানে রয়েছেন তাঁরা। সেই কারণেই এই দাম বৃদ্ধি।

এবিষয়ে জয়েন্ট কাউন্সিল অফ বাস সিন্ডিকেটসের সাধারণ সম্পাদক তপন বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, গত এক মাস যাবৎ মুনাফা ছাড়া বাস মালিকরা পরিসেবা দিচ্ছে। মূলত হিসাব মত বিনা পয়সায় যাত্রীরা যাতায়াত করছে। লোকসান করে পরিসেবা দেওয়া মানে বিনা পয়সায় যাত্রী নিয়ে যাওয়া। এই ভাবে দীর্ঘ মেয়াদী চলতে পারে না। কারন সরকার জনগনের টাকায় ভর্তুকি দেয়। আমাদের দেনা করে পরিষেবা দেওয়া বেশী দিন সম্ভব না। সাধারন ঘরের মানুষ বাস মালিকরা। এই মুহূর্তে যে ভাবে ডিজেলের মূল্য বৃদ্ধি হয়েছে, তা ভাবা যায় না। ভাড়া বৃদ্ধি ছাড়া কোনও বিকল্প রাস্তা নেই।

উল্লেখ্য, দীর্ঘ লকডাউন এরপর আনলক মানে রাজ্যে বাস পরিষেবা চালু হওয়া নিয়ে শুরু হয়েছিল দীর্ঘ টানাপোড়েন। ভাড়া বৃদ্ধির দাবিতে দীর্ঘদিন ধরে বাস বন্ধ করে রাখে বেসরকারি সংগঠন। যদিও পরে সরকারের সঙ্গে দীর্ঘ আলোচনার পর রাস্তায় বাস নামাতে রাজি হয় বেসরকারি সংগঠনগুলি। তবে তাদের অভিযোগ ছিল কার্যত মুনাফা ছাড়াই বাস চালিয়ে যেতে হচ্ছে তাদের। সঙ্গে উপরি হিসেবে রয়েছে ডিজেল পেট্রোলের দাম বৃদ্ধি তাই এবার সবকিছুকে পিছনে ফেলে একতরফাভাবেই ভাড়া বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিল বাস সংগঠন।