Punjab: একের পর এক নাটকীয় মোড়, এবার ইস্তফা দিলেন পাঞ্জাবের মন্ত্রী রাজিয়া সুলতানা

10
Punjab
একের পর এক নাটকীয় মোড়, এবার ইস্তফা দিলেন পাঞ্জাবের মন্ত্রী রাজিয়া সুলতানা

মহানগর ডেস্ক: পাঞ্জাবের রাজনীতিতে একের পর এক নাটকীয় মোড় এসেই চলেছে। গতকাল আচমকাই কংগ্রেস নেতা নভজ্যোত সিং সিধু তাঁর প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি পদ থেকে ইস্তফা দেন এবং কংগ্রেস নেত্রী সোনিয়া গান্ধীকে নিজের ইস্তফাপত্র জমা দেন। এর ঠিক পরেই আরেক কংগ্রেস নেত্রী তথা পাঞ্জাবের মন্ত্রী এবং বিধায়ক রাজিয়া সুলতানাও সিধুর পথ অনুসরণ করে নিজের পদ থেকে ইস্তফা দেন।

সম্প্রতিই মুখ্যমন্ত্রী চরণজিৎ সিং চান্নির নতুন মন্ত্রিসভায় ঠাঁই পেয়েছিলেন পাঞ্জাবের মালেরকোটলা কেন্দ্রের বিধায়ক রাজিয়া সুলতানা। কিন্তু গতকালই নভজ্যোত সিং সিধুর ইস্তফা দেওয়ার পরই তিনিও ইস্তফা দিয়ে বলেন, ‘ নভজ্যোত সিং সিধুর সঙ্গে সংহতি জানিয়ে আমিও ইস্তফা দিলাম।’ তিনি আরও বলেন, ‘ নভজ্যোত সিং সিধু একজন নীতিপরায়ন মানুষ। তিনি লড়াই করছেন পাঞ্জাবের উন্নয়নের লক্ষ্যে।’ তবে তিনি জানিয়েছেন কংগ্রেসের একজন সাধারণ কর্মী হিসেবেই কাজ করবেন তিনি।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, চলতি মাসেই পাঞ্জাবের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিং তাঁর পদ থেকে ইস্তফা দেন এবং মুখ্যমন্ত্রীর পদে বসেন চরণজিৎ সিং চান্নি। সম্প্রতিই একটি নতুন মন্ত্রিসভা গঠন করা হয় এবং তাতে সাত নতুন মুখ ও আনা হয়েছে। কিন্তু এই মন্ত্রিসভায় বিশেষ কয়েকজনের ঠাঁই হওয়ায় এই সিদ্ধান্তে অখুশি ছিলেন পাঞ্জাবের প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি নভজ্যোত সিং সিধু। সিধুর প্রধান অভিযোগ ছিল রানা গুরজিৎ সিংয়ের মত দুর্নীতিপরায়ণ ব্যক্তির মন্ত্রিসভায় জায়গা পাওয়া নিয়ে। সিধু তাঁর ইস্তফাপত্রে লিখেছিলেন, ‘একটা মানুষের চরিত্রের অবনমনের বীজ সমঝোতার মধ্যেই নিহিত থাকে। আমি কখনোই পাঞ্জাবের ভবিষ্যতের জন্য কোনরকম সমঝোতা করতে রাজি নই এবং পাঞ্জাবের উন্নতির জন্যও কোনরকম আপস করতে রাজি নই।’ তবে সিধুর ইস্তফাপত্র কংগ্রেসের হাইকম্যান্ড গ্রহণ করেনি। পরিবর্তে রাজ্য নেতৃত্বকেই সিধুর মানভঞ্জনের দায়িত্ব দিয়েছেন সোনিয়া এবং রাহুল।