রবীন্দ্র সঙ্গীত ও সন্তান প্রসব! নজিরবিহীন ঘটনার স্বাক্ষী রইল এই বাংলা

27

মহানগর ডেস্ক: মানসিক চাপ দূর করতে মানুষ কত কিছুই না করে থাকে। কেউ নিজের স্ট্রেস ভুলতে বেরিয়ে পড়েন ঘুরতে। কেউ আবার নিজের পছন্দের খাবার খেয়ে স্ট্রেস দূর করার চেষ্টা করেন। আবার গান কাউকে মানসিক চাপ দূর করতে সাহায্য করে। অনেক কিছু থেকেই হতে পারে স্ট্রেস। সেরকমই প্রসবের সময়কার মানসিক চাপ দূর করতে উত্তর ২৪ পরগনা জেলার বাসিন্দা সুস্মিতা দে অপারেশন টেবিলেই গান ধরেন।

সন্তান জন্ম দিতে গিয়ে একজন নারী যে কষ্ট ও মানসিক চাপের মধ্যে দিয়ে যায়, তা কারোরই অজানা নয়। সেরকমই একটি পরিস্থিতিতে রবীন্দ্রসঙ্গীতের সাহায্য নেন‌ পশ্চিমবঙ্গের ওই মহিলা। জানা গিয়েছে, মের ৩ তারিখ মসলন্দপুরের একটি বেসরকারি নার্সিংহোমে ভর্তি হয়েছিলেন সুস্মিতা দে। সেদিন অপারেশন থিয়েটারের ভিতরে ডাক্তার এবং নার্সরা তাঁর মানসিক চাপ দূর করতে অনবরত তাঁর সঙ্গে কথা বলে গিয়েছেন। তখন সুস্মিতা দেবী তাঁদের বলেন যে, তিনি সঙ্গীতে স্নাতক করেছেন। তখন তাঁরা তাঁকে রবীন্দ্রসঙ্গীত গাওয়ার অনুরোধ করেন। তারপরেই তিনি ‘আমারো পরানো যাহা চায়’ গানটি ধরেন।

তাঁর গান গাওয়ার মাঝেই জন্ম হয় তাঁর মেয়ে দিব্যাংশীর। সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে এদিন সুস্মিতা দেবী বলেন, “আমি সেই দিনটি কখনোই ভুলব না। বিশেষত ডাক্তার এবং নার্সদের কথা তো কখনোই না। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ১৬১ তম জন্মশতবর্ষে, আমি কবির প্রতি আমার শ্রদ্ধা এবং কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে গানের সেই বিশেষ মুহূর্তের ভিডিওটি শেয়ার করেছি। আমি খুশি যে, আমি সেই ভিডিওতে খুব ভালো সারা পেয়েছি”।

তাঁর ইচ্ছে, ভবিষ্যতে তাঁর মেয়েও বড় হয়ে গানের পিছনে ছুটুক। মেয়েকে রবীন্দ্রসঙ্গীত শেখাবেন সুস্মিতা দেবী। এদিন তাঁর দেওয়া ভিডিও মুহূর্তের মধ্যেই ভাইরাল হয়ে যায় নেটমাধ্যমে। সকলেই তাঁর সেই মুহূর্তের ভিডিও দেখে আপ্লুত হয়েছেন।