‘ মমতা – অভিষেকও সব জানে, আইন যা ব্যবস্থা নেবে, সেটাই মেনে নিতে হবে’, বেহালাকাণ্ড নিয়ে বার্তা রত্না চট্টোপাধ্যায়ের

50

মহানগর ডেস্ক: বেহালার চড়কতলা দখলের ঘটনায় বহিস্কৃত হলেন তৃণমূলের ওয়ার্ড সভাপতি বাবান (সোমনাথ) বন্দ্যোপাধ্যায়। বৃহস্পতিবার বেহালা পূর্বের দুই পাড়ার কর্মী-সমর্থকরা বিধায়ক রত্না চট্টোপাধ্যায়ের দ্বারস্থ হলে, তিনি দুই পক্ষকেই কড়া বার্তা দিয়ে নিজের অবস্থান স্পষ্ট করে দেয়। তিনি বলেন, ‘আইন যা ব্যবস্থা নেবে, সেটা সবাইকে মেনে নিতে হবে।’

চড়কতলার দখলকে নিয়ে বেহালায় দুই গোষ্ঠীর মধ্যে সংঘর্ষকে ঘিরে বৃহস্পতিবার বিধায়ক রত্না চট্টোপাধ্যায় সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে জানান, “আইনের ঊর্ধ্বে কেউ নন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় ঘটনাটা পুরো জানেন। তাঁরা পুরো বিষয়টির ওপর নজর রাখছেন। তাঁরা বেহালা থানার সঙ্গে যোগাযোগ রেখেছেন। আমিও রেখেছি।”

এছাড়াও তিনি এদিন সংবাদমাধ্যমকে জানান, “দুটো পাড়ার মধ্যে চড়ক মেলা নিয়ে একটি গন্ডগোল বেঁধেছিল। সেটি থানায় বসে মীমাংসাও করে দেওয়া হয়। তারপরেও এক পাড়া, অন্য পাড়ার উপর ঝাঁপিয়ে পড়ে। ফলে দুপক্ষের মধ্যে লড়াই হয়। আমি তাদের স্পষ্ট বলে দিয়েছি, এখন আর এই বিষয়টা আমার হাতে এটা নেই। এটা আইনের হাতে চলে গিয়েছে। আইন যা ব্যবস্থা নেবে, সেটা সবাইকে মেনে নিতে হবে।”

প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার রাত দশটা নাগাদ শুরু হয় বেহালার তৃণমূলের দুই গোষ্ঠীর মধ্যে সংঘর্ষ। যার ফলে সংঘর্ষে আহত হন বেশ কয়েকজন। পুলিশের সামনেই দুপক্ষের মধ্যে চলে ইট বৃষ্টি। এমনকি গাড়ি, বাইক, স্কুটি সহ একাধিক গাড়িতে চলে তুমুল ভাঙচুর প্রক্রিয়া। এছাড়াও বোমাবাজি এবং গুলি চালানোর মতো ঘটনাও ঘটে।