আবেগে শ্রদ্ধায় ভেসে বাজপেয়ীর অস্থি কলস পৌঁছালো গঙ্গাসাগরে, বিসর্জন শুক্রবারে

155

নিজস্ব প্রতিবেদক, বারুইপুর: রাতপোহালেই গঙ্গাসাগরে যজ্ঞের মধ্য দিয়ে শুক্রবার সকালে সাগরসঙ্গমে বিসর্জিত হবে দেশের প্রয়াত প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অটলবিহারী বাজপেয়ীর অস্থি। সাগর এবং কাকদ্বীপ জুড়ে তা নিয়ে সাজো সাজো রব। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী স্মৃতি ইরানির উপস্থিতিতে বৃহস্পতিবার অস্থি পৌঁছায় কাকদ্বীপে। বৃহস্পতিবার সকালে অটলবিহারী বাজপেয়ীর ছবি এবং ফুল দিয়ে সাজানো লরিতে করে অস্থি কলস নিয়ে বিজেপি নেতৃত্ব রওনা দেয় গঙ্গাসাগরের উদ্দেশ্যে। শুক্রবার সকালে ভাসানো হবে সেই চিতাভস্ম।

এদিন অস্থি গঙ্গাসাগরে পৌঁছানোর আগেই গাড়ি বিভ্রাট হয়। নির্ধারিত সময়ের দুই ঘণ্টা পরে সন্ধ্যা ছ’টা নাগাদ অস্থি কলস পৌঁছায় কাকদ্বীপ লট ৮ নম্বরে। হাজরা, রাসবিহারী, তারাতলা, বেহালা চৌরাস্তা, ঠাকুরপুকুর, পৈলান, আমতলা, সরিষাহাট, ডায়মন্ডহারবার, কুলপি, কচুবেড়িয়া, কালীবাজার হয়ে গঙ্গাসাগরে পৌঁছায় ‘অস্থি কলস যাত্রা’। এই পথে সর্ব মোট ১৮টি জায়গায় প্রয়াত প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীকে শ্রদ্ধা জানান দলের নেতা কর্মীরা। কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি সহ দলের কেন্দ্রীয় সম্পাদক রাহুল সিনহা, সাংসদ রূপা গঙ্গোপাধ্যায়, লকেট চট্টোপাধ্যায়, দলের জাতীয় কর্মসমিতির দুই সদস্য মুকুল রায় ও জয় বন্দ্যোপাধ্যায়-সহ বিজেপির শীর্ষ নেতারা শোভাযাত্রায় অংশ গ্রহণ করেন।

বিজেপি সুত্রের খবর, শুক্রবার সকাল দশটার সময় গঙ্গাসাগরে যজ্ঞ করার পর চিতাভস্ম বিসর্জন দেওয়া হবে। জানা গিয়েছে, গঙ্গাসাগরে বিসর্জন দেওয়ার অস্থি কলস ছাড়াও আরও পাঁচটি অস্থি কলস দিল্লি থেকে নিয়ে এসেছেন দলের রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। গঙ্গাসাগর ছাড়াও দক্ষিণেশ্বর, ত্রিবেণী, ফরাক্কা, তারাপীঠ ও কোচবিহারেও নদীতে বিসর্জন দেওয়া হবে প্রয়াত নেতার চিতাভস্ম।