Rohingyas: রোহিঙ্গা ক্যাম্পগুলিতে একের পর এক হত্যার ঘটনায় চাপে বাংলাদেশ, প্রভাব এই বঙ্গেও

38

মহানগর ডেস্ক: শারদোৎসবকে কেন্দ্র করে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির ঐতিহ্য কলুষিত হয়েছে বাংলাদেশে।‌ সংখ্যালঘু হিন্দুদের উপর চালানো হয়েছে অতর্কিতে আক্রমণ। আন্তর্জাতিক মহল ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে। বাংলাদেশের সাধারণ মানুষ, ধর্মীয় পরিচয় ভুলে সামিল হয়েছে প্রতিবাদ মিছিলে।

এরই মধ্যে রোহিঙ্গা ক্যাম্পগুলির থেকে সহিংসতার একাধিক ঘটনা প্রকাশ্যে এসেছে। কিন্তু এমন ঘটনা হচ্ছে কেন? বিশেষজ্ঞদের মতে রোহিঙ্গাদের মধ্যে এক শ্রেণী অসামাজিক কাজকর্মের সঙ্গে যুক্ত হয়ে পড়েছে। এরা আবার বিভিন্ন গোষ্ঠীতে বিভক্ত। মাদকদ্রব্য হয়ে উঠেছে এই সব অসামাজিক কার্যকলাপের দোসর।

সাম্প্রতিক কালে এমনই এক ঘটনার সাক্ষী থেকেছে কক্সবাজার। এলাকা দখলকে কেন্দ্র করে দুই গোষ্ঠীর মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। মৃত্যু হয় অন্তত ৬ রোহিঙ্গার। এছাড়াও গত ২৯শে আগষ্ট কক্সবাজারের উখিয়ায় লম্বাশিয়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পে গুলি চালিয়ে আরাকান রোহিঙ্গা সোসাইটি ফর পিস অ্যান্ড হিউম্যান রাইটসের চেয়ারম্যান মুহিবুল্লাহকে হত্যা করা হয়৷

রোহিঙ্গা ইস্যু যে পশ্চিমবঙ্গের রাজনীতিতেও প্রভাব বিস্তার করতে শুরু করেছে তা বোঝা গিয়েছে বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীর কথায়। বাংলাদেশের সংখ্যালঘুদের উপর হওয়া অত্যাচারের বিরুদ্ধে নিজের খাসতালুক নন্দীগ্রামে এক মিছিলে অংশ নেন তিনি। সেখানে শুভেন্দু আক্রমণাত্মক সুরে বলেন,‌ “বেড়া ডিঙিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের চুলের মুঠি ধরে ওপারে পাঠাতে হবে।”

Also Read:

ফুটছে বাবুল, সুর বাঁধতে পারি দেবেন আরব সাগর তীরে

উত্তপ্ত ইসলামাবাদ! ফুঁসছে উগ্র ইসলামপন্থীরা, পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষের মৃত ১০

Skin Care: উৎসবের দিনগুলোতে ত্বককে করতে চান প্রানবন্ত? রইল কিছু টিপস