বঙ্গ বিজেপিতে অশান্তি, নজর রাখছে আরএসএস!

8

নিজস্ব প্রতিনিধি: অশান্তি ক্রমেই বাড়ছে বঙ্গ বিজেপিতে। ঘটনার পরম্পরায় যারপরনাই অস্বস্তিতে বিজেপির রাজ্য নেতৃত্ব। বঙ্গ বিজেপির সেই কোন্দলেই রাশ টানতে এবার উদ্যোগী হল আরএসএস। শোন যাচ্ছে, বিজেপির শীর্ষস্তরের রাজ্য নেতৃত্ব, বিশেষ করে রাজ্য সাধারণ সম্পাদক(সংগঠন)অমিতাভ
চক্রবর্তীর কাজকর্মে অত্যন্ত ক্ষুব্ধ আরএসএস।
রাজ্য কমিটিতে মতুয়াদের প্রতিনিধি নেই এই অভিযোগ তুলে হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ ছেড়ে বেরিয়ে গিয়েছেন মতুয়া সম্প্রদায়ের কয়েকজন বিধায়ক। ওই তালিকায় নাম ছিল বনগাঁর সাংসদ বিজেপির শান্তনু ঠাকুরেরও। তাঁর বাড়িতে বিক্ষুব্ধ বিধায়কদের নিয়ে বৈঠকও হয়েছে বলে সূত্রের খবর। দলীয় নেতৃত্বের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিয়ে হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ ছেড়েছেন বীরভূমের কয়েকজন নেতাও। দলীয় নেতৃত্বের বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন খড়্গপুরের বিধায়ক হিরণ চট্টোপাধ্যায়ও। এ সবেরই ওপর কড়া নজর রয়েছে আরএসএস নেতৃত্বের। যদিও সমস্যা মেটাতে বিজেপি নেতৃত্ব কোনও পদক্ষেপ করছেন না বলে সূত্রের খবর। সেই কারণেই ক্ষুব্ধ আরএসএস।
এমতাবস্থায় আরএসএস নেতৃত্ব বিক্ষুব্ধদের সঙ্গে কথা বলেছেন বলে খবর। আরএসএসের নির্দেশে এই প্রক্রিয়া শুরু করেছেন এ রাজ্যে আরএসএসের প্রধান রমাপদ পাল। সূত্রের খবর, শীঘ্রই এ নিয়ে নাগপুরে সংগঠনের সদর দফতরে রিপোর্ট পাঠাবেন তিনি। এ ব্যাপারে বিজেপির জাতীয় সহ সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, রাজ্য নেতৃত্বের তরফে বিক্ষুব্ধ নেতাদের সঙ্গে কথা বলা উচিত বলে আমি মনে করি। আর সংগঠনের মধ্যে কোনও সমস্যা থাকলে তা দ্রুত সমাধান করা দরকার।
এদিকে ঘটনার পরম্পরায় রাজ্য নেতৃত্বের ওপর বিরক্ত বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্বও। দলের কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষক অমিত মালব্য ইতিমধ্যেই বিক্ষুব্ধ নেতাদের তালিকা তৈরির নির্দেশ দিয়েছেন বলেও সূত্রের খবর।