গোয়া: প্রশান্ত কিশোর একা নন, তৃণমূলের হয়ে প্রচার চালাচ্ছে ‘সবথেকে বেশি বিক্রি’ হওয়া খবরের কাগজ!

39

মহানগর ডেস্ক: গোয়ায় আলোচনায় উঠে আসছে তৃণমূল-কংগ্রেস। লুইজিয়ানহো ফালেইরোকে দলে নিয়ে সাড়া ফেলে দিয়েছে ঘাসফুল শিবির। নিজেদের কাজ শুরু করে দিয়েছে প্রশান্ত কিশোরের ‘আইপ্যাক’। সেই সঙ্গে গোয়ার ‘সবথেকে বেশি বিক্রি’ হওয়া খবরের কাগজ!

অভিজ্ঞ নেতা হিসেবে এক সময় ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেসের গুরুত্ব দায়িত্ব পালন করেছিলেন ফালেইরো। কিন্তু ভোটের দোরগোড়ায় দাঁড়িয়ে থাকা গোয়ায় সম্প্রতি চালচলন বদলেছিল তাঁর। জল্পনার অবসান ঘটিয়ে শেষ পর্যন্ত যোগ দিয়েছেন তৃণমূলে। অরবিন্দ কেজরিওয়ালের ‘আম আদমি পার্টি’ (আপ)-তে যোগদানের ‘অফার’ও এসেছিল তাঁর কাছে, এমনটাও শোনা যায়।

‘আপ’-এ নাম লিখিয়ে তৃণমূলে কেন যোগ দিলেন তিনি? মনে করা হচ্ছে পশ্চিমবঙ্গে ঘাসফুল শিবিরের বিজয়রথ তাঁর চোখ ধাঁধিয়ে দিয়েছিল। বঙ্গে বিধানসভা নির্বাচনের পর জাতীয় স্তরে কোমড় বেঁধেছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়রা। ২০২৪-এ কেন্দ্র থেকে বিজেপিকে উৎখাত করার ক্ষেত্রেও তাঁরা প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। পোড়খাওয়া রাজনৈতিক মগজকে কাজে লাগিয়ে এরপরেই তৃণমূলে আসার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন ফেলেইরো, মনে করছেন রাজনৈতিকমহলের একাংশ।

গোয়ায় একটি খবরের কাগজ রয়েছে লুইজিয়ানহো। যার নাম ‘ও হেরাল্ডো’। এখনও পর্তুগিজ শব্দবন্ধকেই ‘মাস্টহেড’ হিসেবে ব্যবহার করা হয় খবরের কাগজটিতে। পত্রিকা কর্তৃপক্ষের দাবি, গোয়ায় ‘ও হেরাল্ডো’ সবথেকে বেশি বিক্রি হওয়া কাগজ।

সম্প্রতি কাগজটিতে তৃণমূলের গুণগান গাওয়া হচ্ছে একচেটিয়াভাবে। সঙ্গে কংগ্রেসকে সমালোচিত করে বিশেষ কলাম। সম্প্রতি একটি হেডলাইন আলোচনায় থেকেছে উল্লেখযোগ্যভাবে। আইপ্যাকের লেখা এবং হেরাল্ডোর একটি প্রতিবেদনের মোটা হরফের ছাপা বাক্য হুবহু একই।

ফালেইরো যে দিন তৃণমূলে যোগ দিয়েছিলেন সে দিন খবরের কাগজটিতে হেডলাইন- নতুন ভোরের অপেক্ষায় গোয়ায়। আইপ্যাকের ওয়েবসাইটেও লেখা হয়েছিল এই একই কথা। বৃহস্পতিবার কাগজে প্রকাশ। ‘গোয়ায় দিদির সুর আরও চড়ছে’।

কংগ্রেসের এক বরিষ্ঠ নেতার কথায়, ‘দল কীভাবে চলবে তা ঠিক করার উনি (লুইজিয়ানহো ফালেইরো) উনি কে? নিজের খবরের কাগজের প্রতি মনোনিবেশ করুক আগে। রাজনীতিতে দালালি করা বন্ধ করুক।’