পরের রাষ্ট্রপতি শরদ পাওয়ার, দাবি সেনা সাংসদ সঞ্জয়ের

10
power raut bengali news

Highlights

  •  পরের রাষ্ট্রপতি হিসেবে সেনার পছন্দ শারদ পাওয়ার
  • সেনা- এনসিপি এখন মহারাষ্ট্রের শাসক জোট.
  • বালা সাহেব ঠাকরের প্রিয়পাত্র ছিলেন শরদ পাওয়ার

মহানগর ওয়েবডেস্ক: পরের রাষ্ট্রপতি হিসেবে শরদ পাওয়ারকে চাই৷ সোমবার এমন দাবি করলেন শিবসেনার রাজ্যসভার সাংসদ সঞ্জয় রাউত৷ তাঁর মতে. ২০২২ সালের রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে সব রাজনৈতিক দলের উচিত এনসিপি নেতা শরদ পাওয়ারের নাম বিবেচনা করা। এদিন তিনি আরও দাবি করেন যে, ২০২২ সালের মধ্যে রাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থীর সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য আমাদের পক্ষে পর্যাপ্ত সংখ্যা থাকবে।
এখন কংগ্রেস ও এনসিপির সঙ্গে জোটে আছে মহারাষ্ট্রর শাসক দল শিবসেনা৷ এই দলের প্রতিষ্ঠাতা বালা সাহেব ঠাকরের অত্যন্ত প্রিয়পাত্র ছিলেন শরদ পাওয়ার৷ আর সেই পাওয়ারের এনসিপির সঙ্গে শিবসেনার এখন মধুচন্দ্রিমা চলছে৷ তাই সঞ্জয় এমন দাবি করলেন বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল৷ সম্প্রতি মহারাষ্ট্রে সরকার গঠনের ক্ষেত্রে কংগ্রেস, শিব সেনা ও তাঁর এনসিপিকে একসঙ্গে নিয়ে আসার ক্ষেত্রে শরদ পাওয়ার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন। সঞ্জয় রাউত বলেন, ‘‌দেশের বরিষ্ঠ নেতা হলেন শরদ পাওয়ার। আমার মনে হয় তাঁর নাম রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের জন্য সব রাজনৈতিক দলেরই বিবেচনা করা উচিত, ২০২২ সালে হবে এই নির্বাচন।’‌ পাশপাশি সঞ্জয় জেএনইউকাণ্ড নিয়ে মোদী সরকারের কড়া সমালোচনা করলেন৷ সিএএ বিরোধী শান্তিপূর্ম ছাত্র আন্দোলনের ওপর এই হামলাকে তিনি চূড়ান্ত বর্বরোচিত বললেন৷

প্রাক্তন কেন্দ্রীয় কৃষি মন্ত্রী এবং চারবারের মুখ্যমন্ত্রী শরদ পাওয়ারের প্রার্থী হওয়ার বিষয়ে অন্যান্য রাজনৈতিক দলের মতামত সম্পর্কে মন্তব্য করে রাউত জানান, তিনি পাওয়ারের নাম কেবল প্রস্তাবিত করেছেন। সঞ্জয় রাউত বলেন, ‘‌আমার মনে হয় অন্য রাজনৈতিক দলেরও উচিত তাদের দলের শীর্ষ–বরিষ্ঠ নেতার নাম রাষ্ট্রপতি পদ প্রার্থীর জন্য প্রস্তাব দেওয়া। ২০২২ সালে আমাদের পক্ষে যথেষ্ট পর্যাপ্ত নাম থাকবে সেখান থেকে রাষ্ট্রপতি প্রার্থী নির্বাচিত করা সহজ হবে।’‌ প্রসঙ্গত উদ্ধার ঠাকরের নেতৃত্বাধীন মহারাষ্ট্র বিকাশ আহাদি সরকারে স্বরাষ্ট্র ও অর্থসহ বেশিরভাগ মন্ত্রক পেয়েছেন শরদ পাওয়ারের দল।