আমরা কি সুপ্রিমকোর্ট তুলে দেব? টেলিকমের বকেয়া নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ বিচারপতির

25
kolkata bengali news

Highlights

  • ৩ মাস সময় দেওয়া হয়েছিল এয়ারটেল, ভোডাফোনদের
  • ‘তবে কি আমরা সুপ্রিমকোর্ট তুলে দেব?’
  • ৯২ হাজার কোটি টাকা বকেয়া না মেটানো হয় তবে টেলিকম সংস্থাগুলির কর্তাদের স্বশরিরে হাজির হতে হবে

মহানগর ওয়েবডেস্ক: ৩ মাস সময় দেওয়া হয়েছিল এয়ারটেল, ভোডাফোনদের। স্পষ্ট নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল ওই সময়ের মধ্যে তারা যেন নিজেদের বকেয়া মিটিয়ে দেয় সরকারকে। যদিও সে নির্দেশ মানা তো দূর, ভোডাফোনের তরফে জানানো হয়, লোকসানে চলার জেরে এই বিপুল অর্থ দেওয়ার মতো সামর্থ তাদের নেই। সরকার যদি তাদের সহায়তা না করে সেক্ষেত্রে ভারতে ব্যবসা বন্ধ হয়ে যেতে পারে এমন একটা সম্ভাবনার কথাও শুনিয়েছিল ভোডাফোন। এমন পরিস্থিতির মাঝেই সময়সীমা পেরিয়ে যাওয়ার পরও টাকা না দেওয়া আদালত অবমাননার জন্য কারণ দর্শানোর নোটিস দিল আদালত। পাশাপাশি, টেলিকম সংস্থাগুলিকে আক্রমণ করে আদালত প্রশ্ন তুলল, ‘তবে কি আমরা সুপ্রিমকোর্ট তুলে দেব?’

দীর্ঘদিন ধরে এয়ারটেল, ভোডাফোনের মতো টেলিকম সংস্থার বিপুল অঙ্কের টাকা বকেয়া পড়ে রয়েছে। বহু পুরানো সেই মামলায় সম্প্রতি শীর্ষ আদালতের তরফে জানিয়ে দেওয়া হয়েছিল শীঘ্রই সেই টাকা মেটানোর জন্য। তবে ৩ মাস পেরিয়ে যাওয়ার পরও টাকা মেটানোর বিষয়ে কোনও পদক্ষেপ নেয়নি টেলিকম সংস্থাগুলি। এই ঘটনার জেরে এদিন বেশ রুষ্ট হলেন শীর্ষ আদালতের বিচারপতি। বেশ কড়া সুরে টেলিকম সংস্থাকে উদ্দেশ্য করে বিচারপতি অরুণ মিশ্র প্রশ্ন করেন, ‘তবে কি আমরা সুপ্রিমকোর্ট তুলে দেব।’ পাশাপাশি এটাও জানানো হয়, অবিলম্বে এই ধরনের দুর্নীতি বন্ধ হওয়া উচিত। এটাই শেষ সুযোগ। আগামী ১৭ তারিখ এই মামলার শুনানি। তার আগে যদি ৯২ হাজার কোটি টাকা বকেয়া না মেটানো হয় তবে টেলিকম সংস্থাগুলির কর্তাদের স্বশরিরে হাজির হতে হবে আদালতে। একইসঙ্গে আদালতের তরফে কড়া ভাষায় জানতে চাওয়া হয়, কোন অধিকারে শীর্ষ আদালতের রায় অমান্য করে এজিআর ফ্রিজিংয়ের নির্দেশিকা জারি করে?

উল্লেখ্য, আদালতের তরফে টেলিকম সংস্থাগুলিকে ৩ মাসের সময়সীমা বেঁধে দেওয়া হলেও, টেলিকমন্ত্রকের তরফে সংস্থাগুলিকে আশ্বস্ত করে জানানো হয়, সময়সীমা পেরিয়ে গেলেও কোনও রকম শাস্তিমূলক পদক্ষেপ করা হবে না। এই ঘটনার পরই টেলিকম সংস্থাগুলির তরফে জানানো হয় আদালতের পরবর্তী নির্দেশ না আসা পর্যন্ত বকেয়া মেটাবে না তারা। এর জেরেই এদিন সরাসরি নোটিশ পাঠানো হল টেলিকম সংস্থাগুলিকে।