‘দল সম্প্রসারণ করতেই ব্যস্ত তিনি, এদিকে শহরের বাতাসের ছড়াচ্ছে বিষ’, শেষদিনের প্রচারে মুখ্যমন্ত্রীকে নিশানা শুভেন্দুর

9
Suvendu Adhikari
তৃণমূলের জন্যই শহরে ছড়িয়ে পড়ছে বিষের পরিমাণ, দাবি শুভেন্দু অধিকারীর।

মহানগর ডেস্ক: কলকাতা পুরো ভোটের প্রচারের শেষ বেলায় ঝড় তুলেছিল যেমন তৃণমূল, তেমনি প্রচারে ঝড় তুলেছিল বিরোধী দল বিজেপি। প্রচারের শেষ দিনে তারকা প্রচার করেছিল তৃণমূল। একইসঙ্গে উত্তর থেকে দক্ষিনে শাসক দলকে বিঁধে প্রচার চালিয়েছে গেরুয়া শিবির। এবার শহরের বায়ু দূষণকে হাতিয়ার হিসেবে তুলে ধরেছিল বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। শেষদিনের প্রচারে নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে নন্দীগ্রামের বিধায়ক একটি পরিসংখ্যান তুলে ধরেন। যেখানে বাতাসের গুণমানের তুলনা করেন তিনি। তাঁর দাবি, শহরকে বিষাক্ত করে তুলেছে রাজ্যের শাসক দল।

একইসঙ্গে তিনি বলেন, মুখ্যমন্ত্রী নিজের দলের সম্প্রসারণ নিয়ে সবসময় ব্যস্ত থাকেন। এদিকে কলকাতার বাতাস যে বিষাক্ত হয়ে উঠেছে সেদিকে কোনও খেয়াল নেই তাঁর। ফেসবুকে পোস্ট করা শহরের বাতাসের গুণমান সূচকের শুভেন্দু অধিকারী উল্লেখ করেছেন, বাতাসের গুণমান বর্তমানে ৩০৯। যা অত্যন্ত ক্ষতিকর। এর পাশাপাশি শুভেন্দু অধিকারীর আরও জানিয়েছেন, এই মুহূর্তে কলকাতা শুধুমাত্র দেশের নয়, সারা বিশ্বের অন্যতম দূষিত শহর হয়ে উঠেছে। বিষাক্ত হয়ে উঠেছে তিলোতমার বাতাস। অথচ রাজ্যের পরিবেশ দপ্তরের ও পশ্চিমবঙ্গ দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদ তাদের বিশেষ গরজ নেই। কারণ মুখ্যমন্ত্রী নিজের দল সম্প্রসারনের কাজেই ব্যস্ত। কলকাতা সচেতন নাগরিক ভোট দেওয়ার আগে এই বিষয়টা একটু ভেবে দেখবেন, যে কাদের উদাসীনতায় এই গোটা শহরে বিষ ছড়িয়ে যাচ্ছে।

প্রসঙ্গত, সম্প্রতি সুইজারল্যান্ডের এক সংস্থা দূষণ সংক্রান্ত এক তথ্য প্রকাশ করেছিল। যেখানে জানা গিয়েছিল, বিশ্বের দশটি শহরে বাতাসের গুণমান অত্যন্ত খারাপ। তার মধ্যে ভারতের রয়েছে তিনটি শহর। দিল্লি, কলকাতা এবং মুম্বাই। এছাড়াও, রাত পোহালেই কলকাতার ১৪৪ টি ওয়ার্ডে রয়েছে নির্বাচন। ইতিমধ্যেই গোটা শহর জুড়ে কড়াকরি ব্যবস্থা শুরু হয়ে গিয়েছে। কিন্তু তার মধ্যেই প্রচারে বাতাসে গুণমানকে হাতিয়ার করে নিল বিজেপি। পরিবেশকেই প্রাধান্য দিতে শুরু করল গেরুয়া শিবির।