Home Featured Shree Bhumi Puja : বুর্জ খলিফার পর এবার রোমের ভ্যাটিকান সিটি, শ্রীভূমির পঞ্চাশ বছরে আরও কী কী চমক থাকছে?

Shree Bhumi Puja : বুর্জ খলিফার পর এবার রোমের ভ্যাটিকান সিটি, শ্রীভূমির পঞ্চাশ বছরে আরও কী কী চমক থাকছে?

by Mani Sankar Debnath
sreebhumi pujo

মহানগর ডেস্ক: বুর্জ খলিফার পর এবার পুজোয় শ্রীভূমি স্পোর্টিংয়ের (Sree Bhumi Sporting Club) নয়া চমক কী! গতবার বিধাননগর-লেকটাউন জুড়ে শ্রীভূমির পুজোর চাপে স্ট্যামপেড হওয়ার ভয়ে মণ্ডপের পাশের রাস্তায় বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল বাস-গাড়ির যাতায়াত। ভিড়ে চাপে হিমশিম পুলিশ। এবারও কী সেই ট্র্যাডিশন ধরে রাখছে মন্ত্রী সুজিত বসুর শ্রীভূমি স্পোর্টিং? আর সেই প্রশ্নের উত্তর,এবার পুজোয় রোমের ভ্যাটিকান তৈরি হয়েছে শ্রীভূমি স্পোর্টিং ক্লাবে। কদিন আগে যার উদ্বোধন করে গিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়( Mamata Banerjee)। গতবারের মারকাটারি ভিড়ের (Huge Crowd) কথা মনে করিয়েও দিয়েছেন তিনি। তবে ইতিমধ্যেই চর্চা শুরু হয়েছে মন্ত্রীর এই মেগাপুজোর, যা কলকাতার একডালিয়া এভারগ্রিন ক্লাব কিংবা সুরুচি সঙ্ঘ, ফিরহাদ হাকিমের অগ্রণী থেকে শুরু করে এই মুহূর্তে এসএসসি দুর্নীতি জেলা থাকা নাকতলার বিগবাজেটের পুজো অনেকটাই পেছনে ফেলে দিয়েছে।

সপ্তা পেরোলেই বাঙালির সেরা উৎসব দুর্গাপুজো। ঢাকে কাঠি না পড়লেও হাওয়ায় ভেসে বেড়াতে শুরু করেছে পুজোর গন্ধ। গ্রাম থেকে শহরে ইতিমধ্যেই মণ্ডপ সেজেগুজে উঠেছে। কোথাও কোথাও চলছে ফিনিশিং টাচ। যদিও দু বছর করোনার ধাক্কা সামলে, আকাশছোঁয়া জিনিসের দামে দিশেহারা বাঙালির কাছে এবারের পুজো আগের মহিমায় ফিরে আসতে পারবে কিনা, তা নিয়ে খানিকটা প্রশ্ন রয়ে গিয়েছে। তবে পুজোর পঞ্চাশ বছর পূর্তিতে এবার আরও জৌলুসে,জাঁকজমকে সবাইকে ফিদা করে দিতে পুরোপুরি তৈরি শ্রীভূমির পুজো।

সংবাদমাধ্যমকে মন্ত্রী জানিয়েছেন, এবারে তাঁদের পুজোর থিম ভ্যাটিকান সিটি। এ বছর তাঁদের পুজোর পঞ্চাশ বছর পূর্তি হচ্ছে। তাই জৌলুস,জাঁকজমকে কোনও কার্পণ্য করা হচ্ছে না। বহু মানুষই রোমের ভ্যাটিকান সিটির কথা শুনেছেন। কজনের ভাগ্যেই ভ্যাটিকান যাওয়ার সুযোগ হয়েছে। জানালেন ষাট দিন ধরে মণ্ডপ তৈরি করা হয়েছে। মোট একশোজন মণ্ডপকর্মী দিনরাত এককরে মণ্ডপ তৈরি করেছেন। গতবছর তাঁরা দুবাইয়ের বুর্জ খলিফা তৈরি করেছিলেন। প্রচণ্ড ভিড়ের চাপে বন্ধ হয়ে গিয়েছিল রাস্তা। বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল বাস চলাচল। এবার তাই আগেভাগে ভিড় নিয়ন্ত্রণের ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। আসলে বাঙালির সবথেকে বড় উৎসব দুর্গাপুজোর জন্য একবছর ধরে অপেক্ষা করে থাকেন সবাই। চারদিন ধরে চলে প্রতিমা,মণ্ডপ ঘুরে ঘুরে দেখা। আর দেদার ভালোমন্দ খাওয়া,চুটিয়ে আড্ডা। দু বছর পর সেই আমেজ,মেজাজ ফিরে আসে কিনা,এখন সেটাই দেখার।

Powered By

You may also like

Leave a Comment