‘২০০৯ সালে মন্ত্রিসভায় বাবাকে কাঁদিয়েছিলেন শুভেন্দু’, বিস্ফোরক মন্তব্য কুণালের

6

মহানগর ডেস্ক: ফের টুইটে শুভেন্দু অধিকারীকে নিশানা করলেন তৃণমূলের মুখপাত্র কুণাল ঘোষ। সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের স্মরণ সভাকে টেনে নিয়ে এসে তৃণমূলকে কটাক্ষ করেছিলেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। সেই কটাক্ষকেই তীব্র ভৎসনা করে পাল্টা আক্রমণ করেন তৃণমূলের মুখপাত্র কুণাল ঘোষ।

এদিন টুইট করে তৃণমূলকে তথা তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কটাক্ষ করেন শুভেন্দু অধিকারী। তিনি লেখেন, ‘সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের জীবনাবসানে একজন অনেক দুঃখ প্রকাশ করেছিলেন। এতটাই দুঃখ পেয়েছেন যে, তাঁর স্মরণসভায় উপস্থিতই থাকতে পারলেন না। আর ওপর একজন বিলাসবহুল একটি পার্টিতে যোগদান কলেন। যেখানে হাজার জন অতিথি ছিলেন, জিভে জল আনার মতো ৩০ ধরণের খাবারের পদও ছিল সেখানে।’

আর এরপরই শুভেন্দু অধিকারীর সেই টুইটকে রিটুইট করে কুণাল ঘোষ লেখেন, ‘সুব্রতদাকে সম্মান জানাতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, শুভেন্দু অধিকারীর কাছ থেকে অন্তত শিখবেন না।’ এরপরই কুণাল বাবু টেনে আনলেন শিশির অধিকারীর শপথ গ্রহণের অনুষ্ঠানের ঘটনা। টুইটারে লিখলেন, “২০০৯ সালে শিশির অধিকারীর কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার শপথগ্রহণ অনুষ্ঠান বয়কট করে ফিরে এসেছিলেন শুভেন্দু। ওঁর বাবা কেঁদে ফেলেছিলেন। সেটা প্রকাশ্যে আলোচনা হবে নাকি? ”

কুণাল ঘোষের এই বিস্ফোরক টুইটের পরই শুরু হয়ে গিয়েছে রাজনৈতিক তরজমা। অর্থাৎ প্রকাশ্যে সকলের সামনে শুভেন্দু অধিকারীকে এইরকম ভাবে হুঁশিয়ারি তথা কটাক্ষ করাকে রাজনৈতিক মহলে নতুন চাপানউতোরের সূচনা করা বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।