লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের টাকা কোথা থেকে আসছে? অঙ্ক কষে জানালেন শুভেন্দু

66

নিজস্ব প্রতিনিধি: সরকারি কর্মীদের ডিএ-র টাকায় লক্ষ্মীর ভাণ্ডার চলছে! অন্ততঃ এমনই অভিযোগ রাজ্যের বিরোধী দলনেতা বিজেপির শুভেন্দু অধিকারির। রীতিমতো অঙ্ক কষে তিনি দেখিয়ে দিয়েছেন লক্ষ্মীর ভাণ্ডার চলছে ডিএ-র টাকায়! টুইটে তিনি সরকারি কর্মচারীদের বঞ্চনার কথাও তুলে ধরেছেন।

একুশের বিধানসভা নির্বাচনের আগে লক্ষ্মীর ভাণ্ডার প্রকল্পের কথা ঘোষণা করেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রাজ্যের কুর্সিতে ফিরেই ওই প্রকল্প চালু করে দেন তিনি। প্রতিশ্রতি অনুযায়ী, ওই প্রকল্পে প্রতি মাসে সাধারণ গৃহবধূরা ফি মাসে ৫০০ টাকা করে পাচ্ছেন। আর তপশিলি জাতি-উপজাতির বধূরা পাচ্ছেন হাজার টাকা করে।

লক্ষ্মীর ভাণ্ডার প্রকল্পের এই টাকার উৎস যে সরকারি কর্মচারীদের বঞ্চনা করে দেওয়া হচ্ছে, এদিন তা স্পষ্ট করে দেন শুভেন্দু। অঙ্ক কষে তিনি দেখিয়ে দেন, কীভাবে সরকারি কর্মচারীদের ডিএ-র টাকায় চলছে লক্ষ্মীর ভাণ্ডার প্রকল্প। টুইটে শুভেন্দু লেখেন, দেশের কোনও রাজ্যে সরকারি কর্মচারি এমন বঞ্চনার শিকার হয়নি, যেমনটা বাংলার হয়ে চলছে। বাংলায় অতীতে এমন বঞ্চনার ইতিহাস নেই। তিনি লেখেন, গ্রুপ ডি কর্মীদের বেতন ১৭ হাজার টাকা। আর তাঁদের ২৮ শতাংশ মহার্ঘভাতা বকেয়া। অর্থাৎ প্রতি মাসে তাঁরা ৪ হাজার ৭৬০ টাকা পাচ্ছেন না। অর্থাৎ বছরে পাচ্ছেন না ৫৭ হাজার ১২০ টাকা। উচ্চপদস্থ কর্মীরা বছরে লক্ষ লক্ষ টাকা কম পাচ্ছেন।

রাজ্যে সাড়ে তিন লক্ষ সরকারি কর্মচারী ও পেনশনভোগী রয়েছেন। তাঁর প্রশ্ন, সেই টাকা যোগ করলে কত হয়?  এর পরেই তাঁর মোক্ষম প্রশ্ন, সরকারি কর্মীদের হকের টাকার ভাগ দিয়েই কি লক্ষ্মীর ভাণ্ডার চলছে?