অনেক প্রচার হয়েছে, এবার মানুষকে বিচার করতে দিন, তাৎপর্যপূর্ণ মন্তব্য হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি

10
kolkata news

নিজস্ব প্রতিনিধি:   করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের মধ্যেই রাজ্যে নির্বাচনী প্রচারের রমরমা নিয়ে তাৎপর্যপূর্ণ মন্তব্য করল হাইকোর্ট।  কলকাতা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি বলেন, ভোটের দিন ঘোষণার পর থেকে অনেক সভা ব়্যালি হয়েছে। এবার মানুষকে বিচার করতে দিন।

করোনা সংক্রান্ত মামলায় হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি বলেন, করোনা বিধি মেনে নির্বাচন করতে হবে। করোনা বিধি মেনে নির্বাচন করানোর সমস্ত দায়িত্ব  নির্বাচন কমিশনের। তাকে সাহায্য করবে রাজ্য সরকার। এই প্রসঙ্গে রাজ্য সরকারের আইনজীবী বলেন, আদর্শ নিয়ম বিঘি লাঘু হয়ে যাওয়ার পর সমস্ত দায়িত্ব নির্বাচন কমিশনের। এই বিষয়ে রাজ্য সরকার কোনও সিদ্ধান্ত নিতে পারবে না। কিন্তু কেন রাজ্য সরকার এই পরিস্থিতিতে কোনও সিদ্ধান্ত নিতে পারবে না, সেই বিষয়ে বৃহস্পতিবার ব্যাখা চাইলেন হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি।

দেশে করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ আকার ধারণ করছে। এই পরিস্থিতিতে রাজ্যে করোনা সংক্রমণ বেড়ে চলেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় আট হাজারের বেশি মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। ঊর্ধ্বগামী করোনা সংক্রমণের পাশাপাশি জোর কদমে চলছে নির্বাচনী প্রচার। এই নির্বাচনী প্রচারের জেরেই করোনা সংক্রমণ অনেকটা বেড়ে গিয়েছে বলে বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন। শেষ তিন দফা ভোট একসঙ্গে করার আবেদন করেছিল তৃণমূল। কিন্তু কেন্দ্রীয় বাহিনী কম রয়েছে বলে নির্বাচন কমিশন তৃণমূলের প্রস্তাবে সায় দেয়নি। এরপরেই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে, ভোট আগে না মানুষের জীবন আগে। 

ভয়াবহ করোনা পরিস্থিতি সামাল দিতে ১ মে থেকে ১৮ বছরের ঊর্ধ্বে যে কেউ করোনার ভ্যাকসিন নিতে পারবেন বলে কেন্দ্রের তরফে জানানো হয়েছে। কিন্তু ভারতে একেই করোনা ভ্যাকসিনের ঘাটতি দেখা দিয়েছে। তারমধ্যে করোনা ভ্যাকসিনের বয়সীমা কমিয়ে দেওয়া হয়েছে। এরফলে ভ্যাকসিনের ঘাটতি কমানো সম্ভব হবে, সেই নিয়ে বিভিন্ন মহলে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।