Singer KK’s Death: ‘আমি COPD-র রোগী, দমবন্ধ করার পরিস্থিতিতে নিজেই থাকতে পারতাম না’, নজরুল মঞ্চ প্রসঙ্গে মদন মিত্র

120
Singer KK's Death: 'আমি COPD-র রোগী, দমবন্ধ করার পরিস্থিতিতে নিজেই থাকতে পারতাম না', নজরুল মঞ্চ প্রসঙ্গে মদন মিত্র
নজরুল মঞ্চ প্রসঙ্গে মদন মিত্র

মহানগর ডেস্ক: মঙ্গলবার সন্ধ্যায় গুরুদাস মহাবিদ্যালয় অনুষ্ঠানের পরই হোটেলে গিয়ে অস্বস্তিবোধ, তারপরেই হাসপাতালে যেতে যেতে পথে মৃত্যু মুম্বইয়ের জনপ্রিয় গায়ক কেকের (KK)। আর সেই মৃত্যুকে ঘিরে এই তোড়পাড় রাজ্য রাজনীতি। জানা যাচ্ছে, ২২০০ জন বসার নজরুল মঞ্চে পাস পেয়েছিল ৭০০০ জন। প্রবল বিশৃঙ্খলায় মঞ্চের ভেতরে ঢুকে পড়েছিল বহু ছাত্রছাত্রীরা। শীততাপ নিয়ন্ত্রণ যন্ত্র পর্যন্ত ঠিকভাবে চলছিল না। শোনা যাচ্ছে, এমনই হাজার অভিযোগ। এমন পরিস্থিতিতে (Singer KK’s Death) অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকা কামারহাটির তৃণমূল বিধায়ক মদন মিত্র (Madan Mitra) মুখ খুললেন। তিনি বলেন, আমার সিওপিডি আছে। নজরুল মঞ্চে অস্বস্তিকর পরিস্থিতি থাকলে আমি নিজেই ওখানে থাকতে পারতাম না। এ বিষয়ে তদন্তের জন্য কোনও কমিশন গঠন হলে, আমি সেখানে নিজে গিয়ে এই বক্তব্য জানাব।

আরও পড়ুন: ‘মেয়েটা হেরে গিয়েও কী সুন্দর কাজ করে চলেছে’, বাঁকুড়ায় সায়ন্তিকার প্রশংসায় পঞ্চমুখ মুখ্যমন্ত্রী

গুরুদাস মহাবিদ্যালয় এর এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন তৃণমূলের যুব নেতা দেবাংশু ভট্টাচার্য, কামারহাটির বিধায়ক মদন মিত্র সহ একাধিক তৃণমূল নেতারা। আর সেই অনুষ্ঠানে সন্ধ্যে ৭টার পর গান করতে দেখা যায় কেকে’কে। এই অনুষ্ঠানের একাধিক ফুটেজ ভাইরাল হয়েছে। কখনও দেখা যাচ্ছে, অনুষ্ঠানের মাঝে বেশ কয়েকবার রুমাল দিয়ে ঘাম মুছল তিনি। বারবার জল খাচ্ছেন, স্পটলাইট গরমের জন্য বন্ধ করে দেওয়ার নির্দেশ দিচ্ছেন, এমনকি অনুষ্ঠান শেষে হল ছেড়ে বেরোনোর সময়ও বিধ্বস্ত দেখাচ্ছিল এই কালজয়ী গায়ককে। অনেকে দাবি করছেন, নজরুল মঞ্চের দমবন্ধকর পরিস্থিতির জন্যই মৃত্যু হয়েছে কেকের।

এমন পরিস্থিতি নিয়ে এবার মুখ খুললেন বিধায়ক মদন মিত্র। তিনি বলেন, ‘অনুষ্ঠানের সময় নজরুল মঞ্চের ব্যবস্থাপনায় কোনও ত্রুটি ছিল না। সেখানে বাতানুকূল যন্ত্রও সঠিকভাবেই কাজ করছিল। তাছাড়া আমার নিজের সিওপিডি আছে। ওখানে অস্বস্তিকর পরিস্থিতি থাকলে আমি নিজেই উপস্থিত থাকতে পারতাম না।’

ঠিক একই ধরনের কথা শোনা যায় সংগীতশিল্পী শুভলক্ষ্মীর গলাতেও। তিনি বলেন, ‘অনুষ্ঠানের আগে আমার সঙ্গে কথা হয়েছিল কেকের। সেই সময় ওঁনার মধ্যে কোনও অস্বস্তিবোধ বা কষ্ট আমি দেখতে পাইনি। তাছাড়া ওখানে দমবন্ধকর কোনও পরিস্থিতি ছিল না। তাছাড়া কেকে যেভাবে মন্ত্র জুড়ে গান করেন, সেখানে ওঁনার গরম লাগা কিংবা ঘাম মোছাটা কোন অস্বাভাবিক নয়।’