Weather: দক্ষিণে ছিটেফোঁটা, উত্তরে প্রবল বৃষ্টি, কি বলছে আবহাওয়া দফতর জেনে নিন

75
দক্ষিণে ছিটেফোঁটা, উত্তরে প্রবল বৃষ্টি, কি বলছে আবহাওয়া দফতর জেনে নিন

মহানগর ডেস্ক: কেমন থাকবে আজকের আবহাওয়া (Weather)? দক্ষিণবঙ্গে খাতায়-কলমে বর্ষা ঢুকে গেলেও, এখনও সে ভাবে দেখা মেলেনি বৃষ্টির। মাঝে দুই থেকে তিন দিন হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টি হওয়ার পর ফের দেখা যাচ্ছে তাপমাত্রার দাপট। এরইমধ্যে জানা যাচ্ছে, উত্তরবঙ্গে ফের একবার প্রবল বৃষ্টির আশঙ্কা দেখা যাচ্ছে। অন্যদিকে দক্ষিণবঙ্গ বাসীদের মনে প্রশ্ন জাগছে, মৌসুমী বায়ু দক্ষিণবঙ্গে ঢুকে গেলেও এখনও কেন দেখা মিলছে না বর্ষার!

আবহাওয়া দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে যে মৌসুমী অক্ষরেখা বর্তমানে একই জায়গায় স্থির রয়েছে। বর্তমানে মৌসুমী অক্ষরেখার অগ্রগতি স্থির রয়েছে। যার কারণে বৃষ্টির দেখা মিলছে না। হাওয়া অফিসের হিসাব অনুযায়ী, সময়ের আগে উত্তরবঙ্গে ঢুকেছিল বর্ষা। কিন্তু সময়ের ৯ দিন পরে দক্ষিণবঙ্গে ঢুকেছে বর্ষা।

পাশাপাশি আরও জানানো হয়েছে, শুধু বাংলা নয়, বাংলা, বিহার, উড়িষ্যা, ঝাড়খন্ড, উত্তরপ্রদেশের বেশকিছু জেলায় ইতিমধ্যেই ঢুকে পড়েছে বর্ষা। শহর কলকাতার উপর সকাল থেকেই দেখা যায় মেঘ জমা আকাশ। কিন্তু দেখা মেলে না বৃষ্টির। আবহাওয়া দফতর মনে করেছিল, প্রথম দিকে হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টি হলেও চলতি সপ্তাহ থেকে দক্ষিণবঙ্গে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা থাকছে।

কিন্তু দক্ষিণবঙ্গে সেই বৃষ্টি এখনও অধরা। তার বদলে উত্তরবঙ্গে মৌসুমী বায়ুর যে অক্ষরেখা রয়েছে, সঙ্গে দক্ষিণ-পশ্চিম বায়ুর ফলে প্রচুর পরিমাণে জলীয়বাষ্প ঢুকছে উত্তরবঙ্গে। আর তাতেই ঝরছে অঝোরে বৃষ্টি। একদিকে আবহাওয়া, অন্যদিকে ভৌগলিক বিচিত্রের কারণে জলীয়বাষ্প গিয়ে পাহাড়ে ধাক্কা খাচ্ছে আর তাতেই ঝরে পড়ছে বৃষ্টি। জলীয়বাষ্প সমুদ্র থেকে দক্ষিণবঙ্গ হয়ে উত্তরবঙ্গে গেলেও, দক্ষিণবঙ্গের কপালে জুটছে না বৃষ্টি। থেকে যাচ্ছে গুমোট ভাব।

আগামী আরও ৪-৫ দিনের মধ্যে দক্ষিণবঙ্গে, হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টি বা ভারী বৃষ্টির কোনও সম্ভাবনা নেই। বৃহস্পতিবার থেকে উত্তরবঙ্গের দার্জিলিং, কালিম্পং, আলিপুরদুয়ার, কোচবিহারে বৃষ্টির পরিমাণ বাড়তে শুরু করেছে। আগামী ২৪ ঘণ্টায় উত্তরবঙ্গের একাধিক জেলায় ভারী বৃষ্টির সর্তকতা জারি করা হয়েছে। পাশাপাশি আবহাওয়া দফতর আরও জানিয়েছে, শনিবার থেকে উত্তরবঙ্গের একাধিক জেলায় ভারী বৃষ্টি অতি ভারী বৃষ্টিতে পরিণত হবে।

মালদা ও দক্ষিণ দিনাজপুরে হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। জলপাইগুড়িতেও বিক্ষিপ্ত বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। এছাড়াও আরও বলা হয়েছে, পশ্চিম ভারতের একটি মৌসুমী বায়ুর অক্ষরেখা গিয়েছে। যার ফলে সমুদ্র থেকে ঢুকছে প্রচুর পরিমাণে জলীয়বাষ্প। যার ফলে মহারাষ্ট্রে এবং গুজরাটে প্রবল বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। কেরল ও কর্নাটকে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে।