‘বকেয়া ফি না মেটানো হলে স্কুলে ঢুকতে পারবে না পড়ুয়ারা’, চার দিন পর স্কুল খুললেও অস্বস্তিতে পড়ল অভিভাবকেরা

31

মহানগর ডেস্ক: ৪ দিন পর আজ খুলল জি ডি বিড়লা, অশোক হল, মহাদেবি বিরলা ও শিশু বিহার। জিডি বিড়লা স্কুলের বাইরে পরিষ্কারভাবে নোটিশ টানিয়ে দেওয়া হয়েছে। যেখানে উল্লেখ করা হয়েছে, সোমবার থেকে খুলছে স্কুল। যেসব পড়ুয়াদের বকেয়া মেটানো রয়েছে তারাই একমাত্র স্কুলে আসতে পারবে। বাকিরা নয়। সূত্রের খবর অনুযায়ী জানা যায়, সোমবার দীর্ঘদিন পর স্কুল খোলার পরে অনেকেই ভুল করে বড় ক্যাম্পাসে চলে আসে। তাদের আবারও ছোট ক্যাম্পাসে পাঠানো হয়। একই সঙ্গে স্কুলের মেন গেটের বাইরে স্কুল কর্তৃপক্ষের তরফে জানানো হয় একটি নোটিশ।

এই নোটিশটি টাঙানো হয়েছে শনিবার। অর্থাৎ শনিবার স্কুল কর্তৃপক্ষের তরফে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, যাদের বকেয়া ফি মেটানো হয়নি, সেই সমস্ত পড়ুয়ারা স্কুলে আসতে পারবেন না। এর আগে গত বৃহস্পতিবার স্কুল খোলার পর বকেয়া বেতন বাকি নিয়ে স্কুলের পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে উঠেছিল। চারদিন পর ফের স্কুল খোলা হয়। এবং সেখানেও স্কুল কর্তৃপক্ষের তরফে এই ধরনের নোটিশে বিতর্ক তৈরি হয়েছে স্কুল প্রাঙ্গনে। করোনার তাণ্ডবের কারণে বহু মানুষের কাজ চলে গিয়েছে। অসহায় হয়ে পড়েছিলেন বহু মানুষ। স্কুলের বেতন দিতে পারছিলেন না বহু পরিবার। যার কারণে আদালতের দ্বারস্থ হয়েছিলেন তারা।

প্রথম ধাপে আদালতের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছিল, স্কুলের ফি এর জন্য কোনও ভাবেই চাপ দেওয়া যাবে না। করোনা সামান্য থিতিয়ে পড়াতে আদালতের পক্ষ থেকে জানানো হয়, স্কুলের ৮০ শতাংশ বকেয়া মিটিয়ে দিতে হবে। গত সপ্তাহে সেই নিয়ে উত্তপ্ত হয়ে উঠেছিল জিডি বিড়লা। বিক্ষোভ দেখানো হয়। আর এর পরেই রাতারাতি স্কুল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। চারদিন পরে ফের খুলল স্কুল। কিন্তু সেখানেও স্কুল কর্তৃপক্ষের তরফে জানানো হয়েছে, যেসব পড়ুয়ারা বকেয়া ফি মেটাতে পারেনি তারা স্কুলে ঢুকতে পারবেন না।

পাশাপাশি আরও জানা গিয়েছে, স্কুলের বিরুদ্ধে একাংশ অভিভাবকেরা আজই আদালতে যেতে পারে। এবং আদালতে গিয়ে তারা দাবি জানাতে পারে যে, স্কুলের ৮০ শতাংশ বকেয়া বিল মেটানোর পরেও কেন পড়ুয়াদের প্রবেশ করতে দেওয়া হচ্ছে না।