‘রাজ্যে একনায়কতন্ত্র চলছে, আর মুখ্যমন্ত্রীর অঙ্গুলি হেলনেই হচ্ছে সবকিছু’, বিপ্লব দেবকে তীব্র আক্রমণ বিজেপি বিধায়ক সুদীপ রায় বর্মনের

36

মহানগর ডেস্ক: নিজের দলের বিরুদ্ধে একের পর এক বিস্ফোরক মন্তব্যের জেরে প্রায়শই শিরোনামে থাকতে দেখা যায় ত্রিপুরার বিজেপি বিধায়ক সুদীপ রায় বর্মনকে। একবার ফের সেই পথে হেঁটেই এবার রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেবের বিরুদ্ধে গলার সুর চড়ালেন তিনি।

বৃহস্পতিবার তিনি বলেন,’ রাজ্যে একনায়কতন্ত্র চলছে। এক ব্যাক্তির শাসন চলছে ত্রিপুরায়। যা কিছু হচ্ছে সেটা সবটাই মুখ্যমন্ত্রীর অঙ্গুলি হেলনে। নেতা থেকে মন্ত্রী কারও কোনও ক্ষমতা নেই। রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা লাটে উঠেছে। পুলিশ ঠুঁটো জগন্নাথ।’

এরপর তিনি আরও বলেন,’ আমাদের মুখ্যমন্ত্রী তো আবোল তাবোল বলার মাস্টার। ওঁর কথা সিরিয়াসলি তো কেউই নিই না। প্রতিদিনই কথা পাল্টে ফেলেন উনি। রাজ্যে কাজ কিছুই হয়নি। শুধু শিলান্যাস করছেন বিপ্লব দেব। ফলক লাগাচ্ছেন। মানুষ ক্ষুব্ধ। এইরকম মুখ্যমন্ত্রী সম্বন্ধে আমি আর কী বলব, যা বলার জনগণই বলবেন।’

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, কিছুদিন আগেই প্রকাশ্যে সাফ জানিয়ে দিয়েছিলেন যে ২০২৩ সালের আসন্ন ত্রিপুরা বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির টিকিটে লড়বেন না তিনি। সূত্রের খবর অনুযায়ী জানা গিয়েছে যে তিনি সম্ভবত কংগ্রেসে যোগদান করতে চলেছেন। ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেবের সঙ্গে তাঁর তিক্ত সম্পর্কের কথা সকলেরই জানা। এমনকি ২০১৯ সালের লোকসভার নির্বাচনের পর মন্ত্রিত্বও কেড়ে নেওয়া হয়েছে তাঁর কাছ থেকে।

ইতিমধ্যেই আশীষ দাস নামক এক বিধায়ক ত্রিপুরার পুরভোটের আগেই গেরুয়া শিবির ছেড়ে তৃণমূলে যোগদান করেছেন। এবার আরও দুই বিধায়ক আশীষ রায় এবং সুদীপ রায় বর্মনের দলত্যাগের সম্ভাবনা রয়েছে। আর এই নিয়ে যথেষ্ট চাপেই রয়েছে বিপ্লব দেবের দল।