পাচামি যেতেই সুজন চক্রবর্তীকে দেখানো হল কালো পতাকা, তৃণমূলের বিক্ষোভের মুখে বাম নেতা

17
Sujan Chakraborty
বীরভূমের পাচামি এলাকা পরিদর্শনে যেতেই তৃণমূলের বিক্ষোভের মুখে পড়তে হল বাম নেতা সুজন চক্রবর্তীকে।

মহানগর ডেস্ক: আগামী সপ্তাহে রয়েছে কলকাতা পুরভোট। এরপর ধাপে ধাপে রাজ্যের বাকি পৌরসভাগুলিতেও করা হবে নির্বাচন। এরই মধ্যে পাচামি এলাকা পরিদর্শনে যান বাম নেতা সুজন চক্রবর্তী। সম্প্রতি সিঙ্গুরের মত দেউচা পাচামি প্রকল্পের প্যাকেজের জন্য জোর করে জমি অধিগ্রহণ করা হবে না বলে জানিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর তারপরেই পাচামি এলাকায় খনি প্রকল্পের কাজ শুরু করা হয় সরকারের তরফে। এমনকি পাচামি এলাকার আদিবাসীদের পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করা হবে বলেও জানায় রাজ্য সরকার। কিন্তু তার মধ্যেই সেই এলাকায় হাজির হন বামনেতা। আর এর ফলেই তৃণমূল কর্মী সমর্থকদের বিক্ষোভের মুখে পড়তে হয় তাঁকে।

এদিনের ঘটনা প্রসঙ্গে বাম নেতা সুজন চক্রবর্তীর জানিয়েছেন, ‘সাধারন মানুষ কি চাইছেন, আদৌ তাঁরা এই প্রকল্প চাইছেন কিনা, তাঁদের কোনও ক্ষতি হবে কিনা এইসব খতিয়ে দেখতে আমরা আজ এখানে এসেছিলাম। কেন আমরা যেতে পারব না? পাচামি প্রকল্প কি কেবল তৃণমূলের নাকি। এটা তো রাজ্য সরকারের প্রকল্প। আমরা এখানে ঢোকার আগেই কালো পতাকা দিয়ে বিক্ষোভ দেখাতে থাকে তৃনমূলের কর্মী-সমর্থকরা। তৃণমূল কংগ্রেসের এত কিসের ভয়? আমরা তো আমাদের লোকের সঙ্গে কথা বলতে এসেছি। এর থেকে তো বেশি কিছু নয়’। একইসঙ্গে তিনি আরও জানিয়েছেন, খনি এলাকার মানুষ এই প্রকল্প চান না। তারা আমাদের জানিয়েছেন। এই খনি হলে তাঁদের ক্ষতি হতে পারে। আমরা সাধারণ মানুষের কথা শুনতে এখানে এসেছিলাম।

রাজ্য সরকারের এই পাচামি প্রকল্প নিয়ে জেলাশাসক বিধান রায় জানিয়েছিলেন, আদিবাসীদের সর্বাধিক সংশয় ছিল তাঁদের জমি অধিগ্রহণ করা হলে তাঁরা কোথায় যাবেন। এছাড়া তাঁদের সংস্কৃতি নষ্ট হতে পারে এই সব কথা চিন্তা করেই সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে আদিবাসীদের কোন নতুন ফ্ল্যাট বাড়ি নয়। তার বদলে মোহাম্মদ বাজার ব্লকেই গ্রামীণ পরিবেশে আদিবাসীদের পুনর্বাসন করা হবে। একই সঙ্গে পাঁচামির কতটা এলাকাজুড়ে কয়লা রয়েছে তা জানতে দেওয়ানগঞ্জ ও হরিণশিঙায় কূপ খনন করা হবে। মাটির কতটা নিচে কয়লা রয়েছে তাও পরীক্ষা করা হবে ওই কূপ খননের মাধ্যমে। স্থানীয়রা যেন কোন গুজবে কান না দেয় এমনটাই অনুরোধ জানানো হয়েছে জেলাশাসক এর পক্ষ থেকে।

উল্লেখ্য, বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম কয়লা খনির সন্ধান পাওয়ার সুবাদে বীরভূমের দেউচা পাচামি ব্লক এলাকার নাম এখন অনেকেরই জানা। বীরভূমের দেউচা পাচামি কয়লা খনির কাজ শুরুর বিষয়ে সবুজসংকেত দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। প্রায় ১৩ হাজার বর্গকিলোমিটার এলাকাজুড়ে কোল ব্লক এলাকা রয়েছে। প্রাথমিক সমীক্ষা অনুযায়ী জানা গিয়েছিল ৩০১০ টি পরিবার এই খনি অঞ্চলে বসবাস করেন। যার মধ্যে ১০১৩ আদিবাসী পরিবার রয়েছে।