শুরু জ্ঞানবাপী মসজিদ সমীক্ষার কাজ, মোতায়েন বিশাল পুলিশবাহিনী

83

মহানগর ডেস্ক: শুক্রবার বারাণসীর বিতর্কিত জ্ঞানবাপী মসজিদের ভিডিও সার্ভের উপর স্থগিতাদেশ দেয়নি শীর্ষ আদালত। আজ সেখানে পুরোদমে সমীক্ষার কাজ শুরু হয়ে গিয়েছে। শান্তি বজায় রাখতে মোতায়েন করা হয়েছে বিশাল পুলিশবাহিনী। অপ্রীতিকর পরিস্থিতি যাতে তৈরি না হয়, তার জন্য মসজিদ চত্বরের ৫০০ মিটারের মধ্যে বন্ধ রাখা হয়েছে দোকানপাট।

গতকাল সুপ্রিম কোর্টে মসজিদে সার্ভে বন্ধ করার দাবি জানান প্রবীণ আইনজীবী আহমদি। কিন্তু ‘অঞ্জুমান ইনতেজামিয়া মসজিদ কমিটি’-র পক্ষ থেকে সেই আবেদন গ্রাহ্য হয়নি। প্রধান বিচারপতি রমনা বলেছেন, “আমরা এই মামলার নথি খতিয়ে দেখি নি। বিষয়টা যে ঠিক কী, সেটাই আমরা জানি না। তাই আমি কী ভাবে কোনও নির্দেশ দেব? সমস্ত নথি আগে খতিয়ে দেখা হবে, তারপরে এই বিষয়ে শুনানি হবে”।

প্রসঙ্গত, জ্ঞানবাপী মসজিদ চত্বরে শৃঙ্গারগৌরী স্থানে পুজো করার আবেদন জানিয়েছিলেন ৫ জন মহিলা। স্থানীয় আদালতের দ্বারস্থ হয়েছিলেন তাঁরা। গত এক বছর ধরে ওই অঞ্চলটি খুলে দেওয়া হয়েছে। ওই মহিলারা মন্দির চত্বরের অন্যান্য দেববিগ্রহের সামনেও প্রার্থনা করার আবেদন করেছিলেন। গত এপ্রিলে এই বিষয়টি তদন্তের নির্দেশ দিয়েছিল বারাণসী আদালত। কয়দিন আগেই মসজিদের ভিতরে সমীক্ষার কাজ শুরু হয়। কিন্তু ভিডিও সার্ভেতে আপত্তি তোলেন মসজিদের কমিটির সদস্য ও তাঁদের আইনজীবীরা।

তাঁরা বলেন, মসজিদের মধ্যে কোনওরকম ভিডিওগ্রাফি করা যাবে না। কিন্তু দাখিলকারীদের আইনজীবীরা বলেন, তাঁরা আদালতের নির্দেশ মেনে কাজ করছেন। বৃহস্পতিবার এই নিয়ে শুনানি ছিল বারাণসী আদালতে। সেখানে ভিডিও সার্ভে অব্যাহত রাখার নির্দেশ দিয়েছে আদালত। তারপর সুপ্রিম কোর্টে পৌঁছায় মসজিদ কমিটি। সেখানেও তাঁদের পক্ষে রায় মেলেনি। ১৬৬৯ সালে মুঘল বাদশাহ ঔরঙ্গজেব বিশ্বনাথ মন্দির দখল করে জ্ঞানবাপী মসজিদ তৈরি করেছেন। এখনও মসজিদের দেওয়ালে হিন্দু দেব-দেবীদের ছবি দেখা যায়। আজকের বিশ্বনাথ মন্দিরটি মারাঠা রাজ্য মালওয়ার রানি অহল্যাবাই হোলকর তৈরি করেছেন। এদিন কড়া নিরাপত্তার সহিত মসজিদে সমীক্ষার কাজ শুরু হয়ে গিয়েছে।