‘মুম্বাই গিয়ে শিল্পপতিদের সঙ্গে বৈঠক শুধুমাত্র পশ্চিমবঙ্গের বেকার ছেলেমেয়েদের ধোঁকা দেওয়া’, মমতাকে তীব্র কটাক্ষ তথাগতর

41

মহানগর ডেস্ক: মঙ্গলবার অর্থাৎ ৩০ নভেম্বর তিনদিনের মুম্বাই সফরে গিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর এই সফরের প্রথম দিনই মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরের পুত্র তথা রাজ্যের মন্ত্রী আদিত্য ঠাকরে এবং শিবসেনা সঞ্জয় রাউতের সঙ্গে বৈঠকও সেরে ফেলেছেন মুখ্যমন্ত্রী। সূত্রের খবর অনুযায়ী, বাকি দুদিনে বিভিন্ন শিল্পপতি এবং এনসিপি সুপ্রিমো শরদ পাওয়ারের সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন তিনি। আর এই নিয়েই বুধবার তাঁকে কটাক্ষ করেছেন বিজেপি নেতা তথাগত রায়।

এদিন নিজের টুইটার অ্যাকাউন্টে দুটি টুইট করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মুম্বাই সফরে শিল্পপতিদের সঙ্গে বৈঠক এবং ত্রিপুরায় তৃণমূল কংগ্রেসের পরাজয় নিয়ে বেনজির আক্রমণ শানিয়েছেন মেঘালয়ের প্রাক্তন রাজ্যপাল। তিনি সেই দুটি টুইট বার্তায় লিখেছেন,’মমতা মুম্বই গিয়ে শিল্পপতিদের সঙ্গে কথা বলছেন! এসব তো শুধু পশ্চিমবঙ্গের মানুষকে, বিশেষ করে বেকার ছেলেদের ধোঁকা দেওয়ার জন্য ! যিনি বিক্ষোভ করে টাটার মতো শিল্পপতিকে তাড়িয়েছেন, অর্ধেক তৈরি কারখানা ভেঙে ধুলোয় মিশিয়ে দিয়েছেন তাঁর ডাকে কত শিল্প আসবে আপনারাই বুঝে নিন।’

 

এরপর তিনি আরও লেখেন,’শখ হয়েছে ভারতের প্রধানমন্ত্রী হবেন। এদিকে বাংলাভাষী ত্রিপুরা পর্যন্ত পিছলে গেল হাত থেকে। তাই কোথায় গোয়া, কোথায় হরিয়ানা, এক একটা বিক্ষুব্ধ নেতা ধরে পায়ঁতারা কষছেন। তা কষুন। কিন্তু এইসব নেতা ধরে আনার যে খরচ সেটা যে পশ্চিমবঙ্গবাসীর পকেট থেকেই যাচ্ছে তা যেন আমরা ভুলে না যাই।’

 

একুশের বাংলা বিধানসভা নির্বাচনে বিপুল সংখ্যক ভোটে নির্বাচিত হয়ে তৃতীয় বারের জন্য নিজেদের সরকার পুনঃপ্রতিষ্ঠা করেছে তৃণমূল কংগ্রেস। আর এরপর থেকেই পশ্চিমবঙ্গের গণ্ডি ছাড়িয়ে দেশের অন্যান্য রাজ্যেও নিজেদের সংগঠনের ভিত মজবুত করতে বদ্ধপরিকর সবুজ শিবিরের নেতা নেত্রীরা। ত্রিপুরা,গোয়া,উত্তরপ্রদেশের পর হরিয়ানাতেও দলীয় সংগঠন তৈরি করার কাজ শুরু করে দিয়েছে জোড়াফুল শিবির। গোয়ার স্টেট ইনচার্জ করা হয়েছিল দলীয় সাংসদ মহুয়া মৈত্রকে, অন্যদিকে সম্প্রতি হরিয়ানার স্টেট ইনচার্জ করা হয়েছিল সাংসদ সুখেন্দু শেখর রায়কে।