Home Featured Samba Scandal: ঘরের শত্রু বিভীষণ, টাকার লোভে ভারতীয় সেনার তথ্য পাচার করেছিলেন দু’জনে

Samba Scandal: ঘরের শত্রু বিভীষণ, টাকার লোভে ভারতীয় সেনার তথ্য পাচার করেছিলেন দু’জনে

by Anamika Nandi
Indian Army: ঘরের শত্রু বিভীষণ, টাকার লোভে ভারতীয় সেনার তথ্য পাচার করেছিলেন দু'জনে

মহানগর ডেস্ক: প্রত্যেক দেশবাসীর কাছে সেনার গুরুত্ব অপরিসীম। দেশ ভক্তি বা দেশ প্রেমের উদাহরণ হিসেবে তুলে ধরা হয় ভারতীয় সেনাবাহিনীর কথা। এতো কিছুর মধ্যেও বিতর্ক রয়েছে। ইতিহাসের পাতা মনে করিয়ে দেয় সাম্বা স্ক্যান্ডালের কথা।

সাম্বা একটি জেলার নাম। ভৌগলিক অবস্থানের দিক থেকে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ জায়গা। জম্মু-কাশ্মীরের আন্তর্জাতিক সীমান্ত থেকে মাত্র ৪০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত। আপাতভাবে গ্রামটি শান্ত। তবে অবস্থানগত দিক থেকে প্রশাসনের নজরে থাকে সব সময়ে।

সাম্বা স্ক্যান্ডাল এমন এক সময়কার কথা যখন ভারত-পাকিস্তান সীমান্তে ওঠেনি কাঁটাতারের বেড়া। সেনার কড়া পাহারা চলত অহরহ। সেই সঙ্গে গুপ্তচরদের আনাগোনা। ভারতীয় সেনাবাহিনীর ১৬৮ তম ইনফ্যান্ট্রি ব্রিগেডে সারওয়ান দাস নামে এক সেনা সদস্য নিযুক্ত ছিলেন। তাঁর মনোভাব ছিল অন্যরকম। আরও টাকা পকেটে রাখার সাধ হয়েছিল তাঁর। সে হোক না বাঁকা পথে!

সাম্বা স্ক্যান্ডাল

ভারত-পাকিস্তান সীমান্তে পাচারের অভিযোগ তখন শোনা যেত। সারওয়ান ভাবলেন একটু পাচরটাচার করে যদি বাড়তি পয়সা আসে তাতে মন্দ কি! যেমন ভাবা তেমন কাজ। জানা যায়, ১৯৭২ সালে প্রথমবার পাকিস্তান গিয়েছিলেন তিনি । রাতে বৃষ্টি হচ্ছিল। তার মধ্যেও সীমান্ত অতিক্রম করে পাকিস্তানে গিয়েছিলেন ভারতীয় সেনার এই সদস্য।

গোপনে কাজটা করতে চাইলেও একটু ভুল করে ফেলেছিলেন সরওয়ান। ধরা পড়ে গিয়েছিলেন পাকিস্তানে। ভারতীয় সেনাবাহিনীর পরিচয়পত্র-সহ । পাক গোয়েন্দা সংস্থা বিষয়টি চেপে দিয়েছিল। সারওয়ানকে অন্যভাবে কাজে লাগিয়েছিল তারা। ভারত থেকে তথ্য পাচারের কাজে লাগানো হয়েছিল তাঁকে। কাজের বিনিময়ে পয়সা। যে কোনো কারণেই হোক তিনি রাজি হয়ে গিয়েছিলেন।

প্রায় তিন বছর পাকিস্তানের হয়ে চরবৃত্তি করেছিলেন সারওয়ান দাস। পরে তাঁর সঙ্গে যুক্ত হয়েছিলেন সহযোগী সেনাসদস্য আয়া সিং। তাঁরও ছিল বাড়তি আয়ের লোভ। ভারত বিষয়টি পরে ধরতে পেরেছিল। একজন গোয়েন্দা কর্মকর্তাকে পাকিস্তানি এজেন্ট সাজিয়ে আয়া সিং এবং সারওয়ান দাসের কাছে পাঠানো হয়েছিল। ভারতীয় গোয়েন্দার পাতা ফাঁদে দু’জনে পা দিয়েছিলেন। হাতে হাতকড়া পরার আগে নানারকম কৌশল অবলম্বন করা করেছিলেন তাঁরা। তবে লাভ হয়নি। ভারতীয় গোয়েন্দা সংস্থা তাঁদের ধরতে সক্ষম হয়েছিল।

You may also like