করোনার সংক্রমনের গ্রাফ ঊর্ধ্বমুখী, বন্ধ হচ্ছে একাধিক সিনেমা হল

10

মহানগর ডেস্ক: রাজ্যে আছড়ে পড়েছে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ। স্মৃতি ফিরছে গত বছরের। দিল্লি মুম্বইয়ের মত বড় শহরে চলছে সপ্তাহ শেষে লকডাউন। মুম্বইয়ের সংক্রমণের গ্রাফ ঊর্ধ্বমুখী। সাধারণ নাগরিক থেকে সুপারস্টার কেউ বাদ যায়নি করোনার প্রকোপ থেকে। ফলে বন্ধ হয়েছে সিনেমার শুটিং। রিলিজ হচ্ছে না কোনও নতুন সিনেমা। সেই কারণেই সিঙ্গেল স্ক্রিন হল বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন কলকাতার হল মালিকেরা।

গত বছর লক ডাউনের সময় থেকেই ওটিটি প্লাটফর্মের দিকে ঝুঁকছিলেন ছবি নির্মাতারা। তবে, করোনা পরিস্থিতি খানিক শিথিল হতেই ৫০ শতাংশ দর্শক আসন নিয়ে খুলে গিয়েছিল সিনেমা হল। শুরু হয়েছিল নতুন ছবির শুটিং। পরিস্থিতি আরও কিছুটা স্বাভাবিক হতেই নতুন বছরে ১০০ শতাংশ দর্শক নিয়ে চলছিল সিনেমা হল গুলি। হলে রিলিজও হয়েছিল বেশ কয়েকটি ছবি। চলতি বছরে বলিউডের অনেক গুলি বড় বাজেটের ছবি রিলিজ করার কথাও ছিল। তবে দেশজুড়ে করোনার প্রকোপে পিছিয়ে গিয়েছে সূর্যবংশী, থালাইভির মত বড় সিনেমার রিলিজ। এমনকী গাঙ্গুবাইয়ের মত বিগ বাজেটের ছবিও ওটিটি প্লাটফর্মে মুক্তির পরিকল্পনা চলছে।

এমতবস্থায় কোনও সিনেমা রিলিজ ছাড়া কলকাতার সিঙ্গেল স্ক্রিনের হল গুলি চালানো মুশকিল হয়ে যাচ্ছে। সেই কারণেই আগামী ২৩ এপ্রিল থেকে বন্ধ হতে চলেছে নবীনা, জয়া সহ রাজ্যের একাধিক সিঙ্গেল স্ক্রিন সিনেমা হল ।হলের মালিকরা এই বিষয়ে জানিয়েছেন, দেশে করোনা অতিমারির বর্তমান অবস্থার কথা মাথায় রেখেই এই সিদ্ধান্ত। আপাতত বন্ধ থাকবে হল। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে আবার খুলবে। কারণ এই মুহূর্তে বড় কোনও ছবি নেই। আর করোনার কারণে হলমুখী হচ্ছে না সাধারণ মানুষ। এই পরিস্থিতিতে হল চালানো মুশকিল হচ্ছে হল মালিকদের।