বিজেপির নয়া কৌশল, শান্তনুকে দমাতে বিধায়কদের করা হল পুরভোটের কনভেনার

8

মহানগর ডেস্ক: দিন দিন বিজেপির অন্দর মহলের চাপ বাড়তে শুরু করেছে। বিজেপি সূত্রে জানা গিয়েছে, শান্তনু ঠাকুর সঙ্গে মতুয়া আন্দোলনে যুক্ত ছিলেন যেসব বিধায়কেরা তাদের এবার কনভেনারের দায়িত্ব দেওয়া হচ্ছে। কনভেনারের দায়িত্ব ইতিমধ্যেই বুঝিয়ে দিতে শুরু করে দিয়েছে দল। বলে রাখা ভাল, বনগাঁ সাংগঠনিক জেলায় ৬ জন বিধায়ক রয়েছেন। পাঁচজন কনভেনার হলেন বিক্ষুব্ধ ৫ বিধায়ক। যারা ইতিমধ্যেই দলের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ ছেড়ে বেরিয়ে এসেছেন। বনগাঁ দক্ষিণের বিধায়ক স্বপন মজুমদার পরিষ্কারভাবে জানিয়ে দিয়েছেন, তিনি মতুয়া হলেও শান্তনু ঠাকুরের সঙ্গে নেই।

এছাড়াও দলীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, সুব্রত ঠাকুরকে এখনও তার পৌরসভা অর্থাৎ গোবরডাঙ্গা পৌরসভার কার্যভার গ্রহণ করতে দেখা যায়নি। সুব্রত ঠাকুর জানিয়েছেন, যতক্ষণ পর্যন্ত না রাম পদ দাসকে সভাপতির পদ থেকে সরানো হচ্ছে ততক্ষণ পর্যন্ত তিনি পৌরসভার কোনও দায়িত্ব নেবেন না। কিন্তু বাকি চার বিধায়ক দলকে সহযোগিতা করছেন বলে জানা গিয়েছে। বনগাঁ লোকসভার সাংগঠনিক জেলার ইনচার্জ জানিয়েছেন, সুব্রত ঠাকুর বাদ দিয়ে বাকি বিধায়করা তাদের দায়িত্ব বুঝে নিচ্ছেন পৌরসভা ভোটের আগে। দলীয় নেতৃত্ব সূত্রে জানা গিয়েছে, বিধায়কের সঙ্গে কথা হয়েছে। তারা জানিয়েছেন, দলের সঙ্গেই তারা রয়েছেন। দল যা সিদ্ধান্ত নেবে তাই তাঁরা পালন করবে।

শনিবার রাতেই ৫ বিধায়ক জানতে পেরেছেন তাদের সামনে রেখেই পৌরসভা নির্বাচন হবে। তাদেরকে পুর কনভেনার করে দেওয়া হয়েছে। তার পরের দিন অর্থাৎ রবিবার শান্তনু ঠাকুরের পিকনিকে সামিল হন নি বিধায়কেরা। শুধুমাত্র সুব্রত ঠাকুর ছাড়া পিকনিকে আর কোনও বিধায়ককে দেখা যায়নি।