দাম বাড়ল আমুলের, সমস্ত রকম দুগ্ধের ওপর ২ টাকা মূল্য বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত ফেডারেশনের

81

মহানগর ডেস্ক: ভারতের নেতৃস্থানীয় দুগ্ধ সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান আমুলের তরফ থেকে সোমবার জানানো হয়েছে, তাঁদের সমস্ত রকম দুধের দাম ২ করে বাড়িয়ে হওয়া হবে। এই নতুন মূল্যটি ১ মার্চ, ২০২২ থেকে কার্যকর হবে। এটি গোটা দেশে সমস্ত রকম দুধের উপর প্রতিফলিত হবে।

মূল্যবৃদ্ধির পর, আমূল গোল্ডের একটি ৫০০ml প্যাকেট, যা এর ফুল-ক্রিম দুধ, তার দাম হবে ৩০ টাকা। আমুল তাজা বা টোনড মিল্ক ভ্যারাইটি আধা লিটারের দাম হতে চলেছে ২৪ টাকা এবং আমুল শক্তি বিক্রি হবে ২৭ টাকা করে।

বর্তমানে, আমুল গোল্ডের একটি প্যাকেটের বিভিন্নতার উপর নির্ভর করে প্রতি লিটার দুধ ৫৮ টাকায় খুচরা বিক্রি হবে। একইভাবে, আমুল তাজা বা টোনড দুধ লিটার প্রতি ৪৮ টাকা দরে বিক্রি হবে।

গুজরাট সমবায় মিল্ক মার্কেটিং ফেডারেশন (GCMMF), যা আমুল ব্র্যান্ডের দুধ এবং দুগ্ধজাত পণ্য বাজারজাত করে, শেষ প্রকাশে বলেছে, “গুজরাটের আহমেদাবাদ এবং সৌরাষ্ট্রের বাজারে, আমুল গোল্ড দুধের দাম হবে ৩০ টাকা প্রতি ৫০০ মিলি, আমুল তাজা ২৪ প্রতি ৫০০ মিলি এবং আমুল শক্তি হবে ২৭ টাকা প্রতি ৫০০ মিলি।”

আমেদাবাদ, দিল্লি-এনসিআর, কলকাতা এবং মুম্বই মেট্রো মার্কেটে ফুল ক্রিম দুধের দাম হবে ৬০ টাকা প্রতি লিটার, যেখানে টোনড মিল্কের বৈচিত্র্য আহমেদাবাদে প্রতি লিটারে ৪৮ এবং দিল্লি NCR, মুম্বই এবং কলকাতায় প্রতি লিটারের দাম হবে ৫০ টাকা।

ফেডারেশন জানিয়েছে, গত দুই বছরে, আমুল তাজা দুধের ক্যাটাগরির দাম বার্ষিক মাত্র ৪ শতাংশ বাড়িয়েছে। মুল্য বৃদ্ধির কারণ হিসেবে বলা হয়েছে, “শক্তি, প্যাকেজিং, লজিস্টিকস, গবাদি পশুর খাদ্য খরচ বৃদ্ধির কারণে এই মূল্যবৃদ্ধি করা হচ্ছে -এইভাবে দুধের অপারেশন এবং উৎপাদনের সামগ্রিক খরচ বেড়েছে।”

অর্থাৎ বলা যায়, ইনপুট খরচ বৃদ্ধির সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। বিবৃতিতে বলা হয়েছে, “আমাদের সদস্য ইউনিয়নগুলিও প্রতি কেজি চর্বি ৩৫ থেকে ৪০ টাকার মধ্যে কৃষকদের দাম বাড়িয়েছে, যা আগের বছরের তুলনায় ৫ শতাংশের বেশি।”

ফেডারেশন আরও জানিয়েছে, “মূল্য সংশোধন আমাদের দুধ উৎপাদনকারীদের জন্য লাভজনক দুধের দাম বজায় রাখতে এবং উচ্চতর দুধ উৎপাদনের জন্য এই সিদ্ধান্ত উত্সাহিত করতে সহায়তা করবে।”