Bagtui Massacre : বগটুই কাণ্ডে নয়া মোড়,আনারুলের নির্দেশেই অগ্নিলিলা দেখেছিল গ্রামবাসী

105

মহানগর ডেস্ক : বগটুই কাণ্ডে (Bagtui Masscare)উত্তাল হয়ে উঠেছিল গোটা রাজ্য। সেই ঘটনার রেশ এখনো কাটেনি। এই ঘটনার প্রথম থেকেই মাস্টারমাইন্ড আনারুলকে (Anarul) মনে করা। এবার তা প্রমাণিত হয়ে গেল।বিস্ফোরক তথ্য উল্লেখ সিবিআই (CBI)-এর চার্জশিটে। সিবিআই চার্জশিটে উল্লেখ করেছে, রামপুরহাট মুনসুবা মোড়ে একটি পেট্রোল পাম্প থেকে ৫ লিটার পেট্রোল কিনেছিল ভাদু শেখের (Vadu Sekh) অনুগামীরা। তারপর তারা গ্রামে ঢুকে একাধিক বাড়িতে আগুন লাগিয়েছিল।সোনা শেখ-সহ বাকিদের বাড়িতে আগুন ধরায় তারা। ভাদু খুনের পরেই হাসপাতালে বদলা নেওয়ার উস্কানি দেয় আনারুল। সেই আনারুলের নির্দেশেই পেট্রোল কিনে নিয়ে যাওয়া হয় বলে চার্জশিটে উল্লেখ করেছে সিবিআই।

আরও পড়ুন : যশবন্ত সিনহাকে দেওয়া হল ‘ z ‘ প্লাস নিরাপত্তা, ২৭ জুন জমা করতে পারেন মনোনয়নপত্র

প্রথম থেকেই এই ঘটনায় আনারুল হোসেনকেই মাস্টারমাইন্ড বলে উল্লেখ করেছে সিবিআই। তাদের কথায়, ‘আনারুলই বগুটুই গণহত্যার মূল কারিগর।’ আনারুলের উস্কানিতেই গ্রামে গণগত্যার মতো ঘটনা ঘটেছিল। সিবিআই-এর বক্তব্য, ভাদু শেখ খুনের পর আনারুলই রামপুরহাট হাসপাতালে গিয়ে ক্ষুব্ধ জনতাকে উস্কে দিয়েছিল। সেই উস্কানির পরেই বোমা-লাঠি, পেট্রোল নিয়ে গ্রামের দিকে যায় উন্মত্ত জনতা। চলে ভাঙচুর, আগুন লাগানো।

সিবিআই-এর চার্জশিটে উল্লেখ রয়েছে, আরও বিস্ফোরক তথ্য। ঘটনার রাতে গ্রামবাসীদের তরফে থানায় ফোন করা হয়েছিল। ফোন করা হয়েছিল আনারুলকেও। জানানো হয়েছিল, বাড়িতে আগুন লাগানো হচ্ছে। বোমা মারা হচ্ছে। আনারুল নাকি তখন বলেছিলেন, “আমরা ভাদু শেখ খুনের প্রতিশোধ নিচ্ছি। ওরা মেরেছে। কিছু করতে হবে না। পুলিশও যাবে না।” এই গোটা কথোপকথনের বিষয়টিও চার্জশিটে উল্লেখ করেছে সিবিআই।