‘সিনেমায় আলাদা রাজনীতি চলে, দেব সাংসদ কিন্তু ওঁর ছবি হল পায় না’, অপরাজিত ছবি প্রসঙ্গে দিলীপ ঘোষ

124

মহানগর ডেস্ক: প্রতিদিনের মতো শনিবার সকালেও প্রাতঃভ্রমণে বেরিয়েছিলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সহ সভাপতি দিলীপ ঘোষ। সেখান থেকে রাজ্য সরকারের একাধিক দুর্নীতি নিয়ে মুখ খোলেন তিনি। সঙ্গে অনীক দত্তের অপরাজিত ছবির স্কিন দেওয়া হয়নি নন্দনে, তা নিয়েও বক্তব্য রাখেন দিলীপ বাবু। তিনি বলেন, ওখানে অন্য রাজনীতি চলে। সাংসদ – প্রোডিউসার দেবের সিনেমাও অনেক হলে স্কিন পায় না।

অনীক দত্তের অপরাজিত ছবির স্ক্রিনিং করতে দেওয়া হয়নি নন্দনে। এই নিয়ে এদিন সকালে দিলীপ ঘোষকে প্রশ্ন করা হলে, তিনি বলেন, “আমি জানি না কি রাজনীতি চলছে ওখানে। ওঁনাদের পার্টির লোকেদের ছবিও প্রকাশ করতে দেওয়া হয় না। এমপি দেবের সঙ্গেও এমন ঘটনা ঘটেছে। রিলিজ করতে দেওয়া হয়নি, ওখানে আলাদা হিসাব হয়। এভাবে শিল্প – সাহিত্য – কাব্যকে কলুষিত করা হচ্ছে।”

একই সঙ্গে শিল্প-সাহিত্যের কথা বলতে গিয়ে দিলীপ ঘোষের মুখে শোনা যায় মুখ্যমন্ত্রীর সাহিত্য একাডেমী পুরস্কার প্রাপ্তির বিষয়টিও। তিনি বলেন, “মহাজাতি সদনে এক লাইনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি লাগানো হয়েছে। তিনিও এখন মনীষীর পর্যায়ে চলে গেছেন। ওঁনার সাহিত্য একাডেমী পুরস্কার হয়ে গেল। আমার মনে হয়, নোবেল প্রাইজের জন্য দিদির নামও খুব শীঘ্রই পাঠানো হবে। এখানে কাকে মর্যাদা দেওয়া হচ্ছে? আগের লোকেদের ছোট করা হচ্ছে, নাকি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে বড় করা হচ্ছে? সেটা আমরা ঠিক বুঝে উঠতে পারছি না।”

এছাড়াও এদিন তিনি এসএসসির দুর্নীতির নিয়েও মুখ খোলেন। তিনি বলেন, “যারা পরীক্ষায় ফেল করেছে, অনেক পেছনে নাম ছিল, যাদের ডাকা পর্যন্ত হয়নি মৌখিক পরীক্ষায়, তাঁদের চাকরি হয়ে গেছে। ভাবুন না, এভাবে যদি মাথাপিছু ১০ লক্ষ টাকা করে নেওয়া হয়, তাহলে কত কোটি টাকার দুর্নীতি হয়েছে এখানে?”