Mayawati: ‘রাজ্যে শান্তি-শৃঙ্খলার অভাব রয়েছে’, যোগী সরকারকে কটাক্ষ মায়াবতীর

290
Mayawati: 'রাজ্যে শান্তি-শৃঙ্খলার অভাব রয়েছে', যোগী সরকারকে কটাক্ষ মায়াবতীর

মহানগর ডেস্ক: শুক্রবার ইসলাম ও হজরত মহম্মদকে ঘিরে বিজেপি নেত্রীর বিতর্কিত মন্তব্যের কারণে উত্তরপ্রদেশের কানপুরে (Kanpur) সংঘর্ষ বাধে দুই গোষ্ঠীর মধ্যে। যাতে আহত হয়েছেন বেশ কয়েকজন। শনিবার সেই ঘটনা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন বিএসপি (Bahujan Samaj Party) সুপ্রিমো মায়াবতী (Mayawati)। তাঁর বক্তব্য, প্রধানমন্ত্রী এবং রাষ্ট্রপতি সফরের সময় এই ধরণের ঘটনা খুবই দুঃখজনক এবং দুর্ভাগ্যজনক। যে সময়ে প্রধানমন্ত্রী (Prime Minister) এবং রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ (Ram Nath Kovind) উত্তরপ্রদেশে উপস্থিত ছিলেন তখনই কানপুরে দুই সম্প্রদায়ের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হয়। টুইট করে সেই ঘটনার নিন্দা প্রকাশ করেছেন BSP প্রধান।

তিনি লেখেন, মোদিজী এবং রাষ্ট্রপতি’র উপস্থিতির সময় যে দাঙ্গার পরিবেশ তৈরি হয়েছে তা পুলিশের গোয়েন্দাদের ব্যর্থতা। পরবর্তীতে তিনি উত্তরপ্রদেশে ক্ষমতাসীন বিজেপি সরকারের দিকে আঙুল তুলেছেন। প্রসঙ্গে বলেছেন, সরকারকে বুঝতে হবে যে শান্তি ও শৃঙ্খলার অভাবে রাজ্যে কী ধরণের পরিস্থিতি তৈরি হচ্ছে। তাঁর কথায়, ধর্ম বর্ণ এবং দলীয় রাজনীতির উর্ধ্বে উঠে দোষীদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনগত ব্যবস্থা নিতে হবে এবং একটি স্বাধীন ও নিরপেক্ষ উচ্চপর্যায়ের তদন্ত করতে হবে। সেইসঙ্গে তিনি বলেছেন, ‘এই ঘটনার পুনরাবৃত্তি যাতে আর না ঘটে সেদিকে অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে’।

আরও পড়ুন: ‘শিল্পের পর এবার শিল্পীদের বাংলা থেকে তাড়িয়ে দিচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী’, কেকে’র মৃত্যু প্রসঙ্গে বিস্ফোরক শুভেন্দু

প্রসঙ্গত, ইসলাম ও হজরত মহম্মদকে নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করেন বিজেপি নেত্রী নুপুর শর্মা। যার পর তাঁর সেই মন্তব্যের প্রতিবাদে শুক্রবার কানপুরের প্যারেড মার্কেটে বনধের ডাক দেয় স্থানীয় সংখ্যালঘু সংগঠন। কিন্তু দোকানদাররা দোকানপাট বন্ধ রাখতে রাজি হয় না। তাতেই বেঁধে যায় গন্ডগোল। ক্রমে পরিস্থিতি অশান্ত হয়ে ওঠে। বচসা গড়ায় হাতাহাতিতে। শুরু হয় দোকান ভাঙচুর। এমনকি জানা গিয়েছে দু’পক্ষের মধ্যে পাথর ছোড়াছুড়িও হয়েছে।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে রাস্তায় সেনা নামায় উত্তরপ্রদেশ সরকার। কানপুরের পুলিশ কমিশনার বিজয় সিং মীনা এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে জানিয়েছেন, বাজেয়াপ্ত করা হবে অভিযুক্তদের সম্পত্তি। চলবে বুলডোজারও। তবে এই ঘটনার জন্য যোগী সরকারকেই দুষছেন বিরোধীরা। ফের যোগী রাজ্যের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে প্রশ্ন উঠছে।