বাইরে রোদের দাবদাহ অথচ কাজে যেতেই হবে, জানেন কি এই খাবারগুলি শরীরকে ঠাণ্ডা রাখবে

82

মহানগর ডেস্ক : বাইরে দিনে দিনে সূর্যের তেজ বেড়েই চলেছে। বৃষ্টির চিহ্নমাত্র কোথাও নেই। প্রচণ্ড গরমে শরীর যখন হাঁসফাঁস করছে কিন্তু বাইরে না বেরিয়ে উপায় নেই। অফিস স্কুল কিংবা কাজে তো বের হতেই হবে। অথচ এই তীব্র দাবদাহে শরীর যেন জানান দিয়ে দিচ্ছে। তবে বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন কয়েকটি খাবার যদি গরমে খাওয়া যায় শরীর থাকবে ঠান্ডা। কারণ এই খাবারে আছে এমন কিছু উপাদান যা শরীরকে ভেতর থেকে ঠান্ডা রাখতে সাহায্য করে।

 

অতিরিক্ত ঘামের কারণে শরীর থেকে জন-লবণ দুটোই বের হয়ে যায়। যার ফলে ডায়রিয়া,হিট স্ট্রোক হওয়ার আশঙ্কা বেড়ে যায়। এইসময় খাদ্য তালিকা থেকে বাদ দিতে হবে অতিরিক্ত মশলাদার খাবার। তার বদলে তালিকায় রাখুন এই খাবারগুলি যা শরীরে জলের ঘাটতি পূরণ করবে।

 

তরমুজ : এটি জল জাতীয় ফল। মাত্রাতিরিক্ত গরমে অবশ্যই তরমুজ খাওয়া প্রয়োজন। কারণ এটি শরীরে পরিমাণ পূরণ করে। ডিহাইড্রেশনের আশঙ্কা কমায়। শরীরকে ভেতর থেকে ঠান্ডা রাখে।

 

পুদিনা পাতা : পুদিনা পাতা শরীরকে ভেতর থেকে ঠান্ডা রাখতে সাহায্য করে। এই প্রচণ্ড গরমে যে কোনও খাবারের যোগ করতে পারেন পুদিনা পাতা। এছাড়া ঠান্ডা পানীয় যেমন জিরেজল ,বোরহানি, আমের শরবত ইত্যাদিতে যোগ করতে পারেন। আবার স্যালাডের সঙ্গেও খেতে পারেন পুদিনা পাতা। পুদিনা পাতার চাটনি বা পুদিনা পাতার শরবত এই সময় বিশেষ উপকারী। যা শরীরকে ভেতর থেকে ঠান্ডা রাখতে সাহায্য করে।

 

টমেটো : এটি এমন এক ধরনের সবজি যাতে ৯৪ শতাংশ জল রয়েছে। টমেটোর জুস কিংবা টমেটোর স্যালাড শরীরকে ভেতর থেকে ঠান্ডা রাখতে সাহায্য করে। এছাড়া যে কোনও রান্নার পদেও যোগ করতে পারেন টমেটো। তাতে টমেটোর কোনও পুষ্টি গুণ নষ্ট হয়ে যায় না।

 

শসা : ফাইবার এবং জলের সহায়ক শসা গরমকালের আদর্শ ফল। এটি খেলে শরীর তো ঠাণ্ডা হয় সেইসঙ্গে ক্লান্তি দূর হয়। তবে শুধু শসা খেতে না চাইলে, টক দইয়ের সঙ্গে মিশিয়ে রায়তা বানিয়ে খেতে পারেন।

 

টক দই : টক দই গরমকালে ভীষণ উপকারী একটি খাবার। এটি শরীরের জল এবং লবণের পরিমাণ ধরে রাখতে সাহায্য করে। এতে এমন কিছু উপাদান থাকে যা শরীরকে সতেজ রাখতে সাহায্য করে।

 

ডাবের জল : প্রাকৃতিক উপায়ে পাওয়া এই উপাদানে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ইলেকট্রোলাইটস। যা শরীরে জলের ঘাটতি পূরণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।সেইসঙ্গে এনার্জি বাড়াতে সাহায্য করে। প্রতিদিন একটি করে ডাবের জল খেলে শরীরে জলের ঘাটতি মিটে যায়।

 

লেবুর জল : অতিরিক্ত গরমে তৃষ্ণা মেটাতে কোল্ড্রিংসের বদলে খেতে পারেন লেবুর জল। এটি শরীরকে যেমন সতেজ রাখে তেমন শরীরে লবণের পরিমাণ বজায় রাখে।