তীব্র গরমে হিটস্ট্রোক এড়াতে সাবধান হোন আজই, দেখে নিন ঠিক কী কী করবেন…

101

মহানগর ডেস্ক : যত দিন যাচ্ছে গরম ক্রমশ বেড়েই চলেছে। ওদিকে পারদ বাড়লেও আকাশে দেখা নেই মেঘের। বাইরে বেরোনো যেন এক চরম শাস্তি। সকাল দশটা থেকেই সূর্যের চোখ রাঙানি ক্রমশ অসুস্থ করে দিচ্ছে সাধারণ মানুষকে। আর এই সময় বেশি দেখা যায় সানস্ট্রোক বা হিটস্ট্রোক। দেখে নিন হিটস্ট্রোকের হাত থেকে বাঁচতে কী কী সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে…

 

১) প্রচুর পরিমাণে জল খেতে হবে। স্ট্রোক থেকে বাঁচার জন্য শরীরের প্রয়োজন পর্যাপ্ত জল। কিছু সময় অন্তর অন্তর জল খান। কিন্তু খাবার খাওয়ার সময় অতিরিক্ত জল পান করবেন না। সে ক্ষেত্রে দেখা দিতে পারে হজমের সমস্যা। খাবার খাওয়ার আধঘন্টা আগে অথবা পরে জল খাওয়া উচিত। এতে শরীরের আর্দ্রতা বজায় থাকে।

 

২) বাইরে বের হলে সঙ্গে অবশ্যই রাখুন জলের বোতল। বাড়ি থেকে বিশুদ্ধ জল নিয়ে বের হন। কখনোই অধিক গরম লাগলে কোলড্রিংস, জুস,ঠান্ডা পানীয় খাওয়া উচিত নয়। বাড়ি থেকে আনা বিশুদ্ধ জলেই মেটান তেষ্টা। এতে শরীর যেমন ভালো থাকবে, শরীরে অস্বস্তি কম হবে।

 

৩) অত্যধিক গরমে বাইরে বেরোলে সবসময় হালকা ঢিলেঢালা পোশাক পরা উচিত। এতে গরম কম অনুভূত হয়। গাঢ় রঙের পোশাক পরলে গরম অস্বস্তি দুটোই বেড়ে যায়। টাইট ফিটিং পোশাক পরা থেকে বিরত রাখুন নিজেকে।

 

৪) ছাতা এবং টুপি কেবলমাত্র বৃষ্টি আটকানোর জন্য নয়,রোদ আটকানোর জন্য ব্যবহার করা হয়। অতিরিক্ত রোদ থেকে নিজেকে আটকাতে ছাতা অথবা টুপি অবশ্যই ব্যবহার করা উচিত। এছাড়া চোখ ঢাকার জন্য রোদচশমা আদর্শ। তা না হলে অতিরিক্ত সূর্যের রশ্মিতে চোখের মারাত্মক ক্ষতি হতে পারে।

 

৫) হালকা জাতীয় খাবার খাওয়া উচিত এই তীব্র গরমে। অতিরিক্ত তেল-ঝাল ,মসলাদার খাবার থেকে দেখা দিতে পারে মারাত্মক সমস্যা। এই শরীর ভালো রাখতে হালকা খাবার খান।

 

৬) গরমের মৌসুমে নানা ধরনের ফল পাওয়া যায়। জলযুক্ত ফল যেমন তরমুজ,নাসপাতি,শসা,ফুটি ইত্যাদি বেশি করে খাওয়া উচিত। কারণ এগুলি শরীরে জলের ঘাটতি পূরণ করে।

 

৭) অতিরিক্ত গরমে যদি হঠাৎ অসুস্থ লাগে তাহলে অবশ্যই দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া উচিত। গরমে নিজেকে সুস্থ রাখার প্রচেষ্টা থাকুক প্রত্যেকের। নিজের প্রতি যত্নশীল হতে হবে প্রত্যেককে।