তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ হাজার সমর্থকের! পঞ্চায়েতের ক্ষমতাও হাতছাড়া হবার সম্ভাবনা তীব্র

294
kolkata bengali news

নিজস্ব প্রতিবেদক, বর্ধমান: বৃহস্পতিবার পূর্ব বর্ধমান জেলায় দুই জায়গায় তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিল প্রায় এক হাজার সমর্থক। একইসঙ্গে তিনটি গ্রাম পঞ্চায়েত তৃণমূল কংগ্রেসের হাতছাড়া হবার সম্ভাবনাও তীব্র হল। বৃহস্পতিবার বর্ধমান এবং আউশগ্রামে দুটি আলাদা অনুষ্ঠানে এই দলবদলের ঘটনা ঘটে। সেই সঙ্গে তৃণমূলের দখলে থাকা ৩টি পঞ্চায়েত বিজেপির হাতে আসার সম্ভাবনা প্রবল হয়ে উঠল। বৃহস্পতিবার বিজেপির জেলা অফিসে যে ২৫০জন কর্মী তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিলেন তাদের মধ্যে রয়েছেন বর্ধমান-২ ব্লকের বৈকুন্ঠপুর-১ গ্রাম পঞ্চায়েতের ৮ জন তৃণমুল পঞ্চায়েত সদস্য। বিজেপির জেলা যুব মোর্চার সভাপতি শ্যামল রায় জানিয়েছেন, দু একদিনের মধ্যে আরও কয়েকজন যোগ দিতে চলেছে। বৈকুণ্ঠপুর ১নং গ্রাম পঞ্চায়েতের পাশাপাশি বৈকুণ্ঠপুর-২ নং গ্রামে পঞ্চায়েতেরও বেশ কয়েকজন বিজেপিতে যোগ দেবার আশা প্রকাশ করেছেন তিনি। খুব শীঘ্রই তাদের দলে নেওয়া হবে বলে শ্যামলবাবু জানান। তিনি জানিয়েছেন, বৈকুন্ঠপুর ১ ও ২ গ্রাম পঞ্চায়েত বিজেপির দখলে আসা কেবল সময়ের অপেক্ষা।

এদিন বর্ধমান সদর ২ ব্লকের পাল্লা শ্রীরামপুর থেকে প্রায় ৭০জন যুবক বিজেপির যুব মোর্চা শিবিরে যোগ দিয়েছেন। এছাড়াও বড়শুল এলাকা থেকে ১৩০জন এবং বেচারহাট থেকে ৬জন যোগ দিয়েছেন। এরা সকলেই বিজেপির যুবমোর্চা শিবিরে যোগ দিয়েছেন। এদিন বৈকুণ্ঠপুর ১নং গ্রাম পঞ্চায়েতের তৃণমূলের টিকিটে নির্বাচিত শৈলন্দ্রনাথ ভট্টাচার্য, রিম্পা হালদার বিশ্বাস, জবা সোরেন, দিলীপ সরকার, শিপ্রা ব্যানার্জ্জী, মহাদেব ওরাং এবং ঝুমা কৈবর্ত্য বিজেপির যুবমোর্চার শিবিরে আনুষ্ঠানিকভাবে যোগ দেন। উল্লেখ্য, লোকসভা নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণার পর থেকেই গোটা রাজ্যের পাশাপাশি পূর্ব বর্ধমান জেলাতেও জায়গায় জায়গায় তৃণমূল নেতাদের ওপর চাপ সৃষ্টির অভিযোগ উঠেছে বিজেপির বিরুদ্ধে। খোদ বৈকুণ্ঠপুর ১নং গ্রাম পঞ্চায়েতেও শেষ ৭ বছরের হিসাব চেয়ে বিজেপি সমর্থকরা বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন, ঘেরাও করছে তৃণমূল নেতাদের। স্বাভাবিকভাবেই প্রবল চাপের মুখে পড়ে অনেক তৃণমূল নেতাই দলত্যাগ করাই ভাল বলে মনে করছেন।

অন্যদিকে, যেভাবে বৈকুণ্ঠপুর ১ ও বৈকুণ্ঠপুর ২নং গ্রাম পঞ্চায়েত সহ আউশগ্রামের রামনগর গ্রাম পঞ্চায়েতের নির্বাচিত সদস্যরা তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিতে আগ্রহী হয়ে উঠেছেন তাতে এই তিনটি গ্রাম পঞ্চায়েত অচিরেই বিজেপির দখলে আসতে চলেছে বলে মনে করছেন বিজেপি নেতৃত্বরা। তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগদানকারীরা জানিয়েছেন, তৃণমূলের তোলাবাজি এবং অত্যাচারে তারা অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছেন। দলীয় স্তরে জানিয়েও কোন ফল না হওয়ায় তারা বাধ্য হয়েই বিজেপি শিবিরে যোগ দিয়েছেন। যদিও এব্যাপারে তৃণমূলের পক্ষ থেকে কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।