মধ্যপ্রাচ্যে বাড়ছে যুদ্ধের আশঙ্কা, বাগদাদে মার্কিন দূতাবাসের কাছেই ফের রকেট হামলা ইরানের

9
international news

Highlights

  • তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধের আশঙ্কার মাঝেই ফের একবার ইরাকের রাজধানী বাগদাদে রকেট হামলা চালাল ইরান
  • রবিবার ইরান মোট তিনটি কাত্যুশা রকেট বাগদাদে নিক্ষেপ করেছে বলে জানা গিয়েছে
  • এই রকেট হানায় ছয় ব্যক্তি আহত হয়েছেন বলে পুলিশ সূত্রে খবর

মহানগর ওয়েবডেস্ক: তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধের আশঙ্কার মাঝেই ফের একবার ইরাকের রাজধানী বাগদাদে রকেট হামলা চালাল ইরান। রবিবার ইরান মোট তিনটি কাত্যুশা রকেট বাগদাদে নিক্ষেপ করেছে বলে জানা গিয়েছে। এর মধ্যে দুটি আবার মার্কিন দূতাবাসের কাছেই। এই রকেট হানায় ছয় ব্যক্তি আহত হয়েছেন বলে পুলিশ সূত্রে খবর। এছাড়া আরও একটি রকেট জাদরিয়া এলাকায় নিক্ষেপ করা হয়েছে বলে খবর।

শুক্রবার বাগদাদ এয়ারপোর্টে ইরানের এলিট কোডস বাহিনীর সেনাপ্রধান কাশিম সোলেমানিকে এয়ার স্ট্রাইক করে হত্যা করে মার্কিন সেনা। ট্রাম্পের নির্দেশেই এই হামলা বলে জানিয়েছিল পেন্টাগন। কাশিম হত্যার বদলা যে ইরান নেবে তা আগেই জানিয়েছিলেন ইরানের সর্বোচ্চ নেতা খোমেনেই। এরপরেই শনিবার বাগদাদের মার্কিন দূতাবাসের কাছে প্রথমবার মিসাইল হামলা করে ইরান। সেই ঘটনার ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই ফের হামলা চালাল ইরান।

অন্যদিকে, আমেরিকার ওপর আঘাত হানলে যে ইরানের ওপর ফের গোলাবর্ষণ করবে আমেরিকা, সেই হুমকিও দিয়ে রেখেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। আর তারপরেই ইরানের একাধিক মিসাইল সাইটে তৎপরতা বেড়েছে বলে জানিয়েছে আমেরিকা। যদিও ইরান এই মিসাইল সাইটে তৎপরতা নিজেদের নিরাপত্তার স্বার্থে বাড়ানো হয়েছে বলে দাবি করলেও, মার্কিন দূতাবাসের ওপর রকেট হামলায় সেই তত্ত্ব টিকছে না।

এর পাশাপাশি, তাদের দেশের মাটি থেকে সব বিদেশী সেনা সরাতে হবে বলে নির্দেশ দিয়েছে ইরাক। এই বিষয়ে সেখানকার আইনসভাতেও একটি প্রস্তাব পাশ করা হয়েছে। সাদ্দাম হোসেনের মৃত্যুর পর থেকেই ইরাকে মার্কিন সেনা রয়েছে। তবে এখন সেখানে মোটে ৫০০০ মার্কিন সেনাই রয়েছে। ইরাকের আভ্যন্তরীণ নিরাপত্তার কারণেই সেখানে এখনও সেনা মজুত রাখা হয়েছে বলে দাবি করে এসেছে আমেরিকা। তবে ইরাকের এই আদেশের পরও তা সরিয়ে নিতে রাজি নয় পেন্টাগন। বরং বেশি জোর করলে ইরাকের ওপর কড়া নিষেধাজ্ঞা জারি করা হবে বলে হুমকি দিয়েছেন ট্রাম্প।