‘তৃণমূলকে এনকাউন্টার করে মেরে দেওয়া যাবে না, এখানকার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়’, বিজেপি নেতাকে পাল্টা হুঁশিয়ারি ফিরহাদের

9

মহানগর ডেস্ক: ‘তৃণমূলের হার্মাদদের বলে দিতে চাই আমরা ক্ষমতায় এলে এই পুলিশ দিয়েই আপনাদের এনকাউন্টার করা হবে’, বুধবার দুপুরে চাঁদপাড়া বিজেপির অবরোধের শামিল হয়ে এমনই হুঁশিয়ারি দিলেন পদ্ম শিবিরের বনগাঁ দক্ষিণ কেন্দ্রের বিধায়ক স্বপন মজুমদার। আর তারপরই গেরুয়া শিবির নেতার মন্তব্যকে পাল্টা কটাক্ষ করলেন পশ্চিমবঙ্গের মেয়র ফিরহাদ হাকিম। বললেন, ‘এখানে দাঙ্গার বা এনকাউন্টারের করা যাবে না। কারণ এখানে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় হচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী।’

এদিন ফিরহাদ হাকিম বলেন, ‘পশ্চিমবঙ্গকে কোনদিন উত্তরপ্রদেশ বা গুজরাট করা যাবে না। এখানে দাঙ্গার বা এনকাউন্টার হবে না। কারণ এখানে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় হচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী। এখানে গণতান্ত্রিক ও সংবিধানিক উপায়ে সরকার চলে, প্রশাসন চলে। তৃণমূলকে এনকাউন্টার করে মেরে দেব, এটা হবে না।’

সঙ্গে হুমকি দিয়ে তিনি বলেন, যদি এনকাউন্টারের মানসিকতা থাকে তাহলে জেলে স্থান হবে।’ এছাড়াও মেয়র আরও বলেন, বিজেপি জীবনে এখানে ক্ষমতায় আসবে না। ভারতবর্ষ থেকে বেরিয়ে যাবে। স্বপন মজুমদার নিজে আশ্রয় নেওয়ার জন্য কোনও দিন পাল্টি হতে পারেন।’

মঙ্গলবার নদীয়ার কল্যাণীতে কর্মীদের নিয়ে সভা চলাকালীন আক্রান্ত হন বনগাঁ সাংগঠনিক জেলা সভাপতি রাম পদ দাস। তৃণমূলী হার্মাদরা এই ঘটনা ঘটিয়েছে বলে অভিযোগ এনে বুধবার বেলা বারোটা থেকে বনগাঁ সাংগঠনিক জেলার বিভিন্ন জায়গায় অবরোধ শুরু করেছে বিজেপি। এদিন বেলা বারোটা থেকে আধা ঘণ্টার বেশি গাইঘাটা থানা এলাকার চাঁদপাড়া বাজারে যশোররোড অবরোধ করে বঙ্গ বিজেপি। সেই অবরোধে শামিল হয়ে স্বপন বাবু। তিনি বলেন “গতকাল তৃণমূলের হার্মাদ বাহিনীর লোকেরা জেলা সভাপতির উপর আক্রমণ চালিয়েছে, এটা খুবই নিন্দনীয়। সভাপতির গাড়ি ভাঙচুর করা হয়েছে। পুলিশকে কাজে লাগিয়ে তৃণমূল – বিজেপি কর্মী সমর্থকদের উপর অত্যাচার করছে।

এদিন হুমকি সুরে তিনি বলেন, ” যারা আসলে তালিবানি শাসনে বিশ্বাসী। তৃণমূলের সেই সমস্ত হার্মাদদের বলে দিতে চাই আমরা ক্ষমতায় এলে এই পুলিশ দিয়েই আপনাদের এনকাউন্টার করা হবে।